সোমবার ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

তফসিল ঘোষণা নাই, তবুও মনোহরদীতে জমে উঠেছে সম্ভাব্য প্রার্থীরে প্রচার প্রচারণা।

আপডেটঃ ৫:৪৪ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ৩০, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

নরসিংদীর মনোহরদীতে জমে উঠেছে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রচার-প্রচারণা।তফসিল ঘোষণা নেই তবুও থেমে নেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা।সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় সরগরম গ্রামীণ জনপথ।গ্রামে গ্রামে গিয়ে কুশল বিনিময়ের পাশাপাশি ভোটারদের কাছে দোয়া চাচ্ছেন তারা।এছাড়া ২০ দলীয় জোট বিএনপি নির্বাচনে প্রত্যক্ষ প্রার্থী না দিলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার মনোভাব নিয়ে গোপনে গোপনে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মীরা।এলাকার বিভিন্ন স্থানে ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আওয়ামীলীগ থেকে মনোনীত নৌকার মাঝি হয়ে জনতার খেদমতে আসছেন দলের ত্যাগী নেতারা।ফলে বহু ইউনিয়নে আসছে নতুন মুখ।তাই মনোহরদীর ইউনিয়ন গুলোতেও আসতে পারে নতুন মুখ।এটাই ভাবছেন স্থানীয় নেতাকর্মী ও ভোটাররা।

দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশায় পুরাতন চেয়ারম্যান ও নতুন সম্ভাব্য প্রার্থীরা জোরেসুরে মাঠে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।দলের মনোনয়ন পেতে তারা বিভিন্ন তদবিরে লিপ্ত আছেন।ধর্না দিচ্ছেন জেলা ও উপজেলায় স্থানীয় নেতা-কর্মীদের কাছে। ভোটারদের দিচ্ছেন নানা রকমের প্রতিশ্রুতি।যোগ্যতা ফুটিয়ে তুলতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণাসহ ব্যানার-ফেস্টুন ও বিলবোর্ড টানাচ্ছেন।

জানা গেছে তৃতীয় ধাপে মনোহরদীর ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে ৯টি ইউনিয়নে হচ্ছে নির্বাচন।আর তিনটি ইউনিয়ন-খিদিরপুর, কৃষ্ণপুর, চরমান্দালিয়া এদের তফসিল ঘোষণা পরে আসলেও নতুন মুখসহ পুরাতনরাও প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।বর্তমান চেয়ারম্যানগণ আবারও চেয়ারম্যান হওয়ার জন্য দলের মনোয়ন পেতে হাই কমান্ডে যোগাযোগ করতেছেন।

আর মরিয়া হয়ে ঘুরছেন ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে।বিগত দিনে তাদের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে ভোটারদের মন জয়ের চেষ্টা করছেন।নিজের অর্থে করে নিচ্ছেন এলাকার ছোট খাট উন্নয়ন কাজ।এতে নজরও কাড়ছেন ভোটারদের।তারা আশাবাদী আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাবেন।

খিদিরপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব মাহবুবুর রহমান জামিল বলেন, ছাত্র জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে বড় হয়েছি।দলের জন্য নির্যাতন ও মামলা হামলা, নিপীড়নের শিকার হয়েছি বহু বার।

এমনকি ঘর-বাড়িও ছাড়তে হয়েছিল এবং বর্তমানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে ও মাননীয় শিল্পমন্ত্রী জনাব নুরুল মজিদ মাহমুদের নির্দেশানুযায়ী মুজিব শতবর্ষসহ দলের বিভিন্ন কর্মকান্ডে বিভিন্ন সময় উদ্যাপন করেছি এবং সকল নেতকর্মীদের পাশে থেকেছি।

আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দেবে।প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি।তৃণমূল নেতকর্মী ও ভোটারদের সারাও পাচ্ছি বেশ।সম্প্রতি ভোটারদের নিকট জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই ইউনিয়নের পুরাতন চেয়ারম্যানদের কাজের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

কিন্তু বেশির ভাগ ইউনিয়নে কিছু কিছু মানুষের মাঝে নতুনরা পুরাতন চেয়ারম্যানদের বিষয়ে বিভিন্ন কাজের ভুল-ত্রুটি তুলে ধরছেন।তাই ভোটাররা একজন সঠিক জনগণের পাশে থেকে যিনি নিরলস কাজ করে যাবেন সকল ভোটাররা তাকেই বেছে নিবেন।

IPCS News : Dhaka : মো: তাজুল ইসলাম বাদল, মনোহরদী প্রতিনিধি।