সোমবার ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

৯ মাসে রাজশাহী ট্রাফিক পুলিশের সাড়ে ৬ কোটি টাকা জরিমানা আদায়

আপডেটঃ ৭:১০ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৮, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীতে গত ৯ মাসে ট্রাফিক আইনে ৪২ হাজার ৪০০টি মামলার বিপরীতে সাড়ে ৬ কোটি টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ কার্যকরের পর থেকে জরিমানা আদায় হচ্ছে আগের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি।রাজশাহী মহানগর পুলিশ (আরএমপি) ও জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে আরএমপির ট্রাফিক বিভাগ ৩৫ হাজার ১৪২টি মামলা করেছে।এসব মামলায় জরিমানা আদায় করা হয়েছে ৩ কোটি ৬২ লাখ ৩১ হাজার টাকা।আর জেলা পুলিশ ৯ মাসে মামলা করেছে ৭ হাজার ২৫৮ টি।এসব মামলায় আদায় হয়েছে ২ কোটি ৮৬ লাখ ৪৭ হাজার ৪০০ টাকা।এরমধ্যে রাজশাহী মহানগর (আরএমপি) ট্রাফিক বিভাগে গত জানুয়ারি মাসে ৪ হাজার ৪৬৫টি মামলায় ৪০ লাখ ৩০ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

এ ছাড়া ফেব্রুয়ারিতে ৩ হাজার ৫৯৭টি মামলায় ৩৫ লাখ ৬৬ হাজার ৯০০ টাকা, মার্চে ৪ হাজার ১৬৭টি মামলায় ৩৯ লাখ ১৩ হাজার ৮০০ টাকা, এপ্রিলে ৪ হাজার ৬৪৮টি মামলায় ৩৬ লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা, মে মাসে ৪ হাজার ৭৯টি মামলায় ৪০ লাখ ৭৯ হাজার ৮০০ টাকা, জুনে ৪ হাজার ২১টি মামলায় ৩৮ লাখ ৮৭ হাজার ৮০০ টাকা।

জুলাইয়ে ২ হাজার ৩০৬টি মামলায় ২৯ লাখ ৭৭ হাজার ৯০০ টাকা, আগস্টে ৩ হাজার ৬৫৫টি মামলায় ৫১ লাখ ৯৬ হাজার ২০০ টাকা এবং সেপ্টেম্বরে ৪ হাজার ২০৪টি মামলায় ৪৯ লাখ ৫৯ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা আদায় হয়েছে।অন্যদিকে জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগে জানুয়ারিতে ৮৪১টি মামলায় ২০ লাখ ৭০ হাজার ৭০০ টাক।

ফেব্রুয়ারিতে ৬৮২টি মামলায় ১৭ লাখ ৮২ হাজার ৯৫০ টাকা, মার্চে ১ হাজার ৪০টি মামলায় ৩২ লাখ ৫৭ হাজার ৫০ টাকা, এপ্রিলে ৩৯১টি মামলায় ১৫ লাখ ৬২ হাজার ৯০০ টাকা, মে মাসে ৫৪৪টি মামলায় ১৬ লাখ ৭৯ হাজার ৭০০ টাকা, জুনে ৯৭৯টি মামলায় ২৯ লাখ ১ হাজার ৪০০ টাকা, জুলাইয়ে ১ হাজার ২০টি মামলায় ২৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

আগস্টে ১ হাজার ১৯১টি মামলায় ৬৬ লাখ ৭৪ হাজার টাকা এবং সেপ্টেম্বরে ১ হাজার ১৩২টি মামলায় ৬৩ লাখ ৫৮ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।এ বিষয়ে আরএমপির মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ই-ট্রাফিকিং ও ই-মামলার কারণে জরিমানার পরিমাণ বেড়েছে।আর ট্রাফিক বিভাগের তৎপরতার কারণে চালকদের মধ্যে সচেতনতাও বাড়ছে।

এছাড়া জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম বলেন, সড়কে ট্রাফিক বিভাগের অভিযান জোরদার করা হয়েছে।উপজেলা পর্যায়ে বসানো হচ্ছে চেকপোস্ট।নির্ধারিত স্থানের চেকপোস্ট ছাড়াও একেক দিন একেক জায়গায় করা হচ্ছে ঝটিকা তল্লাশি।সড়কে নিরাপত্তা ও দুর্ঘটনা কমাতে এ অভিযান চালানো হচ্ছে।ফলে জরিমানাও আদায় হচ্ছে বেশি।

IPCS News : Dhaka : আবুল কালাম আজাদ : রাজশহিী।