সোমবার ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

রাজশাহীতে জাতীয় পার্টির উপজেলা দিবস পালন

আপডেটঃ ১:৪৮ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৪, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৯৮৪ সালের ২৩ অক্টোবর উপজেলা পরিষদ প্রতিষ্ঠা করেন।এ দিবসটি কেন্দ্র করে পল্লী বন্ধু এরশাদ প্রতিষ্ঠিত পূর্ণাঙ্গ উপজেলা বাস্তবায়নের লক্ষে উপজেলা দিবস উদযাপন করেছেন রাজশাহী জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা।গত শনিবার (২৩ অক্টোবর) সন্ধায় জাতীয় পার্টির রাজশাহী মহানগর শাখার সদস্য সচিব অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ আবু ইউসুফ সেলিমের সভাপতিত্বে ও রাজশাহী জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব ইকবাল হোসেন এর সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস-চেয়ারম্যান, মহানগর কমিটির আহŸায়ক সাইফুল ইসলাম স্বপন।এ সময় প্রধান অতিথি সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, উপজেলার জন্য এরশাদ স্বাধীনতার স্বাদ ও গণতন্ত্রের সুফল এ দেশের বৃহত্তর মেহনতি কৃষকের দ্বারে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে প্রশাসন বিকেন্দ্রীকরণে উপজেলা পদ্ধতি প্রবর্তন করেন।

তিনি গ্রাম বাংলার উন্নয়নের লক্ষে আজকের এই দিনে উপজেলা পদ্ধতি চালু করেছিলেন।তিনি সে সময় বলে ছিলেন ৬৮ হাজার গ্রাম বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে।তিনি ২৩ শে অক্টোবর ৪৬০ টি থানায় উপজেলা ব্যবস্থার প্রর্বতন করেছিলেন।প্রতিটি উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার যোগ করেছিলেন।কোর্ট স্থাপন, হাসপাতালসহ বিভিন্ন সরকারি অফিস স্থাপন রাস্তাঘাট নির্মাণ করে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন করেছিলেন।

সভায় রাজশাহী মহানগর শাখার সদস্য সচিব অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ আবু ইউসুফ সেলিম বলেন, ২৩শে অক্টোবর বাংলাদেশের উন্নয়নের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন।হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সংস্কারক, উন্নয়ন ও সু-শাসনের মহানায়ক জাতীয় পাটি প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, ঘুণেধরা প্রাগৈতিহাসিক প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে ভেঙ্গে আধুনিক রাষ্ট্রের সময়োপযোগী উপজেলা ব্যবস্থার প্রবর্তন করেন।এই দিনে তৎকালীন মহামান্য রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর একটি স্বিদ্ধান্ত বদলে দেয় সারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরবর্তী ক্ষতবিক্ষত বাংলার রুপ ।প্রশাসন কে বিকেন্দ্রীকরন করে ২১ টি জেলাকে ভেঙ্গে ৬৪ জেলায় ও ৪৬০টি থানাকে উপজেলায় রুপান্তরিত করেন তিনি।তার এই সময় উপযোগী সিধান্তের ফলে প্রতিটি অবহেলিত থানা উপ-শহরে রুপান্তরিত হয়।

প্রতি উপজেলায় ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্ট জজকোর্ট, এলজিইডি অফিস সৃষ্টি করে গ্রামের জনভোগান্তি রাস্তা-ঘাটের পিচের দ্বার উন্নয়ন।ফলে গ্রাম অঞ্চলের মানুষেরা বিচার বিভাগ,উপজেলা চেয়ারম্যানের কর্যালয় সেবা গ্রহন কারী লোক জনের সংখ্যাবৃদ্ধি পাওয়ায় উপ-শহরে পরিনত হয়।

উপজেলা সদরের আশেপাশে বাড়িঘর নির্মাণ,ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠে।কিন্তু পল্লীবন্ধুর সেই উপজেলা পরিষদ ব্যবস্থাপনা এখন আর নেই। সর্বশেষে তিনি জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে সরকারের কাছে পুনাঙ্গ উপজেলা পদ্ধতি বাস্তবায়নের দাবি জানান।

সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা শাখার আহবায়ক মোঃ রাহাত হোসেন, সাবেক ছাত্র নেতা যুগ্ন আহবায়ক এ্যাডভকেট অশোক কুমার দাস, আঃ রহিম খান লাভলু, সিমিত নাহার হিমেল মহানগর নেত্রী,সাইফুল ইসলাম সদস্য জাতীয় পার্টি রাজশাহী জেলা, মহানগর ছাত্র সমাজ এর আহবায়ক মোঃ হাফিজ, মহানগর ছাত্র সমাজ এর যুগ্ন আহবায়ক মোঃ শাউন মাহাবুবুল ইসলাম, জলা ছাত্র সমাজ এর সদস্য সচিব এশারুল ইসলাম, নুরুজামান রফিক ও মহানগর জাপা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন

IPCS News : Dhaka : জি. এম. হাসান ই-সালাম বাবুল : রাজশাহী।