মঙ্গলবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২০২১, নৌকা প্রতীক প্রত্যাশী নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের জনাব “মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান “

আপডেটঃ ১২:১২ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২০২১ এ আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীক প্রত্যাশী নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মানিত সভাপতি, প্রবীণ রাজনীতিবিদ মুজিব আদর্শের সৈনিক, মাননীয় শিল্পমন্ত্রী জনাব “এডঃ নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন” সাহেবের ঘনিষ্ঠ ও আস্থাভাজন, সৎ, নির্লোভ, নিরঅহংকারী ও সকলের শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তি জনাব “মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান ” সাহেব।এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন-আমি ১৯৬৮ সাল থেকে বঙ্গ-বন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে বঙ্গ-বন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে রাজনীতি করে আসছি।প্রথমে ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে কাজ করি, বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সহযোদ্ধা হিসেবে যুদ্ধ করি।স্বাধীনতা-পরবর্তী ১৯৭২-১৯৭৮ সন পর্যন্ত মনোহরদী থানার চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলাম আমার সভাপতি ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ উদ্দিন সাহেব।

৭৫এর ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর আমাদের রাজনীতি অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আমাদেরকে পূর্ব বাংলার সর্বহারা পার্টির কাছ থেকে হত্যার হুমকি দিতে থাকে তখন আমি দিশেহারা হয়ে নিজের এলাকা ত্যাগ করে ঢাকা চলে আসি।১৯৮১ সনে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যখন দেশে ফিরে আসেন তখন আমি নেতা-কর্মীদেরকে সাথে নিয়ে ঢাকা বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলাম।

বর্তমান শিল্পমন্ত্রী মহোদয় জনাব এডঃ নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন সাহেব তখন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছিলেন তখন উনার নেতৃত্বে মাথায় কাফনের কাপড় পরে সৈরাচার বিরোধী আন্দোলন করি।৯১-৯৫ সালের বিএনপি জামাত জোটের আমলে হামলা, মামলা ও অত্যাচারের শিকার হই তখন আমি ঢাকা মহানগর (অবিভক্ত) জাতীয় শ্রমিকলীগের কার্যনিরবাহি কমিটির সদস্য ছিলাম।

আমি জাতীয় বিদ্যুত শ্রমিকলীগ,ডেসা শ্রমিকলীগ ও ডিপিডিসি শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এর দায়িত্ব নিষ্টার সাথে পালন করি।২০০১ এর নির্বাচনের পরে বিএনপি ও জামাত জোটের অত্যাচারে হামলা, মামলার কারনে মনোহরদী থানা আওয়ামীলীগ ও ছাএলীগের অধিকাংশ নেতা কর্মীদের ঢাকাতে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেই, যা মনোহরদী থানার আওয়ামী পরিবারের অধিকাংশ নেতা কর্মীরা জানে।

২০০১ হতে ২০০৬ পর্যন্ত বিএনপি ও জামাত জোটর আমলে আমি সহ আমার ৪ ভাইকে মনোহরদী থানার শেখের বাজার লুটের মামলায় আসামী করা হয়।৯৬ এর জাতীয় নির্বাচনের কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলা নির্বাচনী সফরে জননেত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসাবে বর্তমান শিল্পমন্ত্রী জনাব এডঃ নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন সাহেব এবং আমিও সাথে ছিলাম।

বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে সার্বক্ষণিক নেত্রীর মাথার উপরে ছাতা ধরে ছিলাম।বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারন করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দূর্নীতি মুক্ত হয়ে বর্তমান চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্তা রেখে সকলকে এক সাথে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানাই।

IPCS News Report : Dhaka: মিঠুন রহমান : নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি।