সোমবার ৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ট্রলারডুবির ঘটনায় অবশেষে মিলল শিশু নাশরার লাশ

আপডেটঃ ১:৩২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৮, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রলারডুবির ঘটনায় নিখোঁজ নাশরা নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।এ শিশুর লাশ নিয়ে ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২ জনে।আহত আরও অর্ধশতাধিক।২৮আগস্ট শনিবার সকাল ১০টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা লইসকা বিল থেকে ওই শিশুর নাশরার মরদেহটি উদ্ধার করেন।নাশরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পৈরতলা এলাকার হারিছ মিয়ার মেয়ে, লাশ উদ্ধারের পর তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।নিহতদের মাঝে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি।ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক তৌফিকুল ইসলাম বলেন, বিলে ট্রলারডুবির ঘটনায় শিশু নাশরা নিখোঁজ ছিল।অনেক চেষ্টা করে আজ সকালে নাশরার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।উদ্ধারের চেষ্টা চলছে ডুবে যাওয়া নৌকাটি।নাশরার চাচা মাসুদ মিয়া জানান, নাশরা শুক্রবার সকালে তার চাচা ফারুক মিয়ার শ্বশুর-বাড়ি বিজয়নগর উপজেলার নোয়াগাঁও বেড়াতে যায়।তারা বিকালে ট্রলারে করে বাড়ি ফিরছিল।

ফারুক ছিল ট্রলারের ছাদে এবং নাশরা ও তার চাচি কাজল বেগম ট্রলারের ভেতরে।ট্রলার-ডুবিতে নাশরার চাচি কাজল বেগম মারা যায়।ফারুক সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও নাশরাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।প্রশাসন উদ্ধারকাজ নির্বিঘ্নে চালিয়ে যেতে সাময়িক ভাবে বিজয়নগরের চম্পকনগর বাজার থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া নৌপথে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রাবেয়া আফসার জানান, পরিস্থিতি বিবেচনায় পরবর্তী সময়ে নৌযান চালুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।ঘটনা-সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে লইসকা বিলে একটি যাত্রীবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি বালুবোঝাই ট্রলারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।এতে শতাধিক যাত্রীবোঝাই ট্রলারটি ডুবে যায়।

শনিবার সকাল পর্যন্ত এ ঘটনায় ২২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়ে এবং ১৬ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ব্রাহ্মণ-বাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হোসেন রেজা বলেন, দুর্ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে বালুবোঝাই ট্রলারের চালকসহ তিনজনকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।এখনও উদ্ধারকাজ চলছে।

IPCS News Report : Dhaka: