রবিবার ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

বরিশালে ইউএনও-ওসির বিরুদ্ধে মামলা, পিবিআই করবে তদন্তঃ

আপডেটঃ ৮:৫০ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২২, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

আদালত বরিশাল সদর ইউএনও মুনিবুর রহমান ও ওসি নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুটি মামলার আবেদন গ্রহন করেছে।আজ বিকাল ৪.৩০টায় চিফ জুডিশিয়াল আদালতের বিচারক মাসুম বিল্লাহ এই মামলা দুটি পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।বরিশালে ইউএনওর বাসভবনে হামলা ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় প্রশাসনের দায়ের করা মামলার কাউন্টার হিসেবে এই দুটো নালিশি অভিযোগ আদালতে দায়ের করা হয়।এ্যাড.তালুকদার মোঃ ইউনুচ এ তথ্য জানিয়েছেন।২২ আগস্ট রবিবার সকালে অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, ইউএনও মুনিবুর রহমানের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছেন।অভিযোগে ইউএনও ছাড়াও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি নুরুল ইসলামসহ ৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।এছাড়াও অজ্ঞাতনামা আরও ৪০ জনকে আসামি করা হয়েছে।অপরদিকে বরিশাল সিটি করপোরেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদারও ইউএনওর বিরুদ্ধে আরেকটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ইএনওর নাম সহ সেই অভিযোগে আরো ৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।রফিকুল ইসলাম খোকন এবং মো. বাবুলের করা মামলার আবেদনে ইউএনও মুনিবুর রহমানের বিরুদ্ধে বিসিসির কাজে বাধাদান, বিনা উস্কানীতে বিসিসি’র কর্মচারীদের ওপর গুলিবর্ষণের নির্দেশ প্রদান, হামলা, গুলিতে একাধিক ব্যাক্তির অঙ্গহানী এবং ৩০/৪০ জনকে আহত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

জেলার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে রবিবার এ আবেদন করেন বরিশালের প্যানেল মেয়র-২ রফিকুল ইসলাম খোকন ও সিটি করপোরেসনের রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদার।প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলামের করা না‌লি‌শি মামলার আবেদনে ইউএনও মুনিবুর রহমান, কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম,এসআই শাহজালাল মল্লিক ও ইউএনওর বাসভবনে দায়িত্বরত আনসার সদস্যদের বিবাদী করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ চত্বরে বুধবার রাতে শোক দিবসের ব্যানার খোলাকে কেন্দ্র করে ইউএনও মুনিবুর রহমানের বাসভবনে হামলা হয়।এ সময় সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ওপর আনসার সদস্যদের গুলি ছোড়ার অভিযোগ ওঠে।সংঘর্ষ হয় পুলিশের সঙ্গেও।এতে মেয়রসহ ৩০ জন আহত হন।

এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা দুই মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাদ সাদিক আব্দুল্লাহকে।মামলার মোট আসামি ৬০২ জন,তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

IPCS News Report : Dhaka: