শনিবার ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

অতিরিক্ত আইজিপি জনাব রৌশন আরা বেগম এর মর্মান্তিক মৃত্যুতে আমরা শোকাহত

আপডেটঃ ৩:২৫ অপরাহ্ণ | মে ০৭, ২০১৯

নিউজ ডেস্কঃ

ঢাকা, ৬ মে ২০১৯ খ্রি. আমরা গভীর শোক ও দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, বাংলাদেশ পুলিশের শীর্ষ নারী কর্মকর্তা পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ এর রেক্টর (অতিরিক্ত আইজি) রৌশন আরা বেগম, পিপিএম, এনডিসি আর নেই। তিনি গতকাল ৫ মে স্থানীয় সময় ১৮.৩০ টায় কঙ্গোতে শান্তিরক্ষা মিশন পরিদর্শনকালে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন (ইন্না লিল্লাহে………..রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। তিনি স্বামী, একমাত্র কন্যা ও ভাই-বোনসহ বহু আত্মীয়-স্বজন এবং গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

জনাব রৌশন আরা বেগম গত ৩ মে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন কার্যক্রম পরিদর্শন এবং মেডেল প্যারেডে অংশ নিতে কঙ্গো যান। সেখানে সরকারি দায়িত্ব পালনকালে তাঁকে বহনকারী গাড়িটি কঙ্গোর রাজধানী কিনসাসায় এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনার শিকার হয়। তাঁকে বহনকারী গাড়িকে একটি লরি ধাক্কা দিলে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। গাড়ির অপর আরোহীর মধ্যে ব্যানএফপিইড-১ ( Bangladesh Formed Police Unit ) এর কমান্ডার (পুলিশ সুপার) ফারজানা ইসলাম এবং গাড়ির চালককে হাসপাতালে আহত অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে।

রৌশন আরা বেগম বিসিএস ৭ম ব্যাচে উত্তীর্ণ হয়ে ১৯৮৮ সালের ১৫ ফেব্রæয়ারি সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে পুলিশ ক্যাডারে যোগদান করেন। তিনি বাংলাদেশ পুলিশের প্রথম নারী পুলিশ সুপার হিসেবে অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সাথে ১৯৯৮-২০০০ সাল পর্যন্ত মুন্সিগঞ্জ জেলায় দায়িত্ব পালন করেন। তিনি এনবিআর, ঢাকায় উপ-পরিচালক, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার, স্পেশাল ব্রাঞ্চ (এসবি) ঢাকায় বিশেষ পুলিশ সুপার, কেএমপি, খুলনার অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ও ভারপ্রাপ্ত কমিশনারের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি ২০০৭ সালের ১২ ডিসেম্বর থেকে ২০০৮ সালের ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজির দায়িত্ব পালন করেন।

জনাব রৌশন ঢাকায় ডিটিএস, সিআইডি’র কমান্ড্যান্ট (এডিশনাল ডিআইজি), স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন এন্ড ইন্টেলিজেন্স, সিআইডি ঢাকায় ডিআইজি (চলতি দায়িত্বে) ও ২০১৩-২০১৪ সালে ডিআইজি হিসেবে ফরেনসিক, সিআইডি ঢাকায় কর্মরত ছিলেন। তিনি ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে পদোন্নতি পান।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজ বিজ্ঞানে কৃতিত্বের সাথে বিএসএস (অনার্স), এমএসএস ডিগ্রি কৃতিত্বের সাথে অর্জন করেন। স্বনামধন্য এ পুলিশ কর্মকর্তা দেশের বাইরে যুক্তরাজ্যের পুলিশ স্টাফ কলেজ ব্রামশিল থেকে স্ট্রাটেজিক প্লানিং কোর্স এবং লিডারশিপ কোর্স ফর ফিমেল লিডার’স ইন ইন্টারন্যাশনাল একাডেমি কোর্সে অংশগ্রহণ করেন। তিনি ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব উইমেন পুলিশ (ওঅডচং) (রিজিওন-১৬) এর ৫০তম বার্ষিক ট্রেনিং কনফারেন্স, নিউফাউন্ডল্যান্ড, কানাডা, ৫১তম বার্ষিক ট্রেনিং কনফারেন্স, ডারবান, সাউথ আফ্রিকা এবং (ওঅডচং) (রিজিওন-১৬) সেকেন্ড রিজিওনাল কনফারেন্স, আবুধাবি, সংযুক্ত আরব আমিরাতে অংশগ্রহণ করেন। তিনি ২০১৫ সালে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ বাংলাদেশ থেকে ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স (এনডিসি) সম্পন্ন করেন। ২০১৩ সালে ওঅডচঙ কর্তৃক ইন্টারন্যাশনাল স্কলারশিপ এওয়ার্ডে ভূষিত হন।

তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন কসোভো এবং সুদানে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বাংলাদেশে পুলিশ বাহিনীতে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) পদকে ভূষিত হয়েছেন এবং দুবার IGP’s Exemplary Good Services Badge পেয়েছেন।

তিনি ১৯৯৮ সালে মুন্সিগঞ্জের পুলিশ সুপার থাকাকালীন ‘অনন্যা শীর্ষ দশ-১৯৯৮’ পুরস্কার এবং ২০১২ সালে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব উইমেন পুলিশের স্কলারশিপ অ্যাওয়ার্ড-২০১২ লাভ করেন।

বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের সভাপতি হিসেবে তিনি ২০১১ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া, বিসিএস উইমেন নেটওয়ার্কের বাংলাদেশ পুলিশের ফোকাল পয়েন্ট এবং নেটওয়ার্কের কার্যকরী কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ছিলেন।

এদিকে, এ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা সম্পর্কে আইজিপি ব্যক্তিগতভাবে কঙ্গো মিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে একাধিকবার কথা বলেছেন। তিনি সার্বক্ষণিক মিশনের কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ রাখছেন। জনাব রৌশন আরা বেগমের মরদেহ দ্রততম সময়ের মধ্যে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

আইজিপির শোক : জনাব রৌশন আরা বেগমের মৃত্যুতে আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার) গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি এক শোক বার্তায় বলেন, রৌশন আরা বেগম একজন পেশাদার, কর্তব্যনিষ্ঠ ও দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন। তাঁর বন্ধুসুলভ মনোভাবের জন্য তিনি কর্মস্থলে সকলের অত্যন্ত প্রিয়ভাজন ছিলেন। পুলিশ সুপার হিসেবে জেলায় দায়িত্ব পালনকালেও তিনি তাঁর যোগ্যতা ও পেশাদারিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। বাংলাদেশ পুলিশের নারী কর্মকর্তাদের নিকট তিনি ছিলেন একান্ত নির্ভরতা ও আস্থার প্রতীক।

আইজিপি মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

Ipcs News/রির্পোট