শনিবার ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য আইস ও ইয়াবা উদ্ধার: গ্রেফতার ৯ঃ

আপডেটঃ ৬:০৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৮, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা গুলশান ও মিরপুর বিভাগের একাধিক টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে অত্যাধুনিক মাদক আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ) ও ইয়াবাসহ ৯ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে।গত ১৭/০৮/২০২১ খ্রিঃ তারিখ রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও মোহাম্মদপুর থানা এলাকা হতে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।গোয়েন্দা গুলশান কর্তৃক গ্রেফতারকৃতরা হলো (১) মোঃ নাজিম উদ্দিন, (২) মোঃ আব্বাস উদ্দিন, (৩) মোঃ নাছির উদ্দিন, (৪) মোছাঃ শিউলি আক্তার, (৫) মোছাঃ কোহিনুর বেগম, (৬) সনজিত দাস ও (৭) মোঃ হোসেন আলী।গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত হতে ৫০০গ্রাম আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ),৬৩ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ( যার আনুমানিক মূল্য ৯৫ লক্ষ টাকা ) ও ১টি প্রাইভেট কার উদ্ধার করা হয়।গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগ কর্তৃক গ্রেফতারকৃতরা হলোঃ (১) মোছাঃ রাশিদা বেগম ও(২) মোছাঃ মৌসুমী আক্তার।এ সময় তাদের হেফাজত হতে ২৫ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য যে, উদ্ধারকৃত মাদক আইস মাদকসেবীদের নিকট ক্রিস্টাল মেথ বা ডি মেথ নামে সর্বাধিক পরিচিত। এটি একটি স্নায়ু উত্তেজক মাদক।আইস অত্যন্ত ভয়াবহ মারাত্মক উত্তেজনাকর ও গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকিপূর্ণ একটি ব্যয়বহুল মাদক।এটি গ্রহনে হরমোন উত্তেজনা স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বহুগুণ বৃদ্ধি পায়, ফলে শারীরিক ও মানসিকভাবে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

প্রাথামিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা জানায়, লকডাউনের কারণে অনেকদিন ধরে তাদের মাদক ব্যবসা মন্দা ছিলো। লকডাউন শেষে তারা উক্ত অত্যাধুনিক মাদক আইস ও ইয়াবা ট্যাবলেট কক্সবাজার হতে ক্রয় করে চট্টগ্রাম নিয়ে আসে।মংলা বন্দর অভিমুখী এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডার বহন করা একটি বড় ট্রাকের মাধ্যমে চট্টগ্রাম হতে উদ্ধারকৃত মাদক কুমিল্লায় নিয়ে আসে।

এরপর প্রাইভেট কারযোগে এগুলো ঢাকায় নিয়ে আসে।ঢাকা মহানগরের গুলশান,বনানী, ধানমন্ডিসহ অভিজাত এলাকায় উঠতি বয়সের বখাটে যুবক যুবতীদের নিকট এই মাদক বিক্রয় করে।গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও মোহাম্মদপুর থানায় মামলা রুজু হয়েছে।মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে।

ডিএমপির গোয়েন্দা (গুলশান) বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব মশিউর রহমান বিপিএম, পিপিএম এর সার্বিক দিক নির্দেশনায় অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার, গোয়েন্দা (গুলশান) বিভাগ জনাব মাহবুবুল হক সজীব এর তত্বাবধানে,গুলশান জোনাল টিমের টিম লিডার সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব দেবাশীষ কর্মকার এর নেতৃত্বে অভিযান পরিচালিত হয়।

IPCS News Report : Dhaka: উপ-পুলিশ কমিশনার
মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স : ডি.এম.পি।