রবিবার ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

আওয়ামী লীগের সময়েই হয়েছে বিচার ব্যবস্থার সব উন্নয়ন : প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ ৬:০১ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৩, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

আওয়ামী লীগের সময়েই হয়েছে বিচার ব্যবস্থার সব উন্নয়ন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর এনেক্স ভবন করে বিচারক বৃদ্ধির পদক্ষেপ নিয়েছি।শনিবার (৩ জুলাই) জাতীয় সংসদের সমাপনী অধিবেশনে দেওয়া এক বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।জেলা আদালত থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত যত ডেভেলপমেন্ট হয়েছে সবই আওয়ামী লীগ সরকারের সময় হয়েছে।এটা আমরাই করেছি; আর কেউ করেনি।আর বিএনপির সময় কী হয়েছে? ৬৩টি জেলায় আদালতে বোমা বর্ষণ।মারা গেছেনদুইজন জেলা জজ, কয়েকজন আহত হয়েছেন।এত শান্তিপূর্ণ অবস্থায় রেখেছিল বিএনপি।তাদের কাছ থেকে এখন শুনতে হয় বিচার ব্যবস্থা, বিচারক নিয়োগ ইত্যাদি।

বিএনপি সরকারের সময় এক ছাত্রদল নেতার ঘাড়ে হাত রেখে আলোচনা করে বিচারপতির রায় দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।এছাড়াও ভোট চুরির সুযোগ তৈরির জন্য প্রধান বিচারপতির মেয়াদ বাড়িয়ে তাকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান করার বিষয়টিও করেছিল বিএনপি।বিচার ব্যবস্থা নিয়ে এজাতীয় সংসদে বেশ কিছু কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।এখানে বিচারপতি নিয়োগ নিয়ে বিরোধী দলের উপনেতা কিছু কথা বলেছেন।আমি একটু স্মরণ করিয়ে দিতে চাই-বাংলাদেশের বিচারপতি নিয়োগের যে নমুনা ছিল তা যদি আপনারা একটু স্মরণ করেন-প্রধান বিচারপতি কামাল হোসেন তিনি এজলাসে বসে আছেন, কিন্তু তিনি জানেন না তিনি ওই পদে নাই।রাষ্ট্রপতির এক কলমের খোঁচায় বিচারপতি নাই।প্রধান বিচারপতি এজলাসে বসে আছেন-তখন তাকে বলা হলো-আপনি তো নাই। রাত্রিবেলায় আপনাকে বিদায় দেওয়া হয়েছে। এই হলো অবস্থা।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির আমলে ভুয়া সার্টিফিকেট দিয়েও বিচারপতি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।তিনি বলেন, যদি বিএনপি ও এরশাদের আমলের কাহিনী বলতে যাই অনেক সময় লেগে যাবে।প্রধানমন্ত্রী করোনা ভ্যাকসিন প্রসঙ্গে বলেন, দেশের ৮০ ভাগ মানুষকে বিনামূল্যে করোনা টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, আমরা ভারত থেকে করোনা টিকা কেনার ব্যবস্থা করেছিলাম।কিন্তু ভারতে যেভাবে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা বেড়েছে ফলে তারা রপ্তানি বন্ধ করে দেয়।এতে কিছুদিন আমাদের সমস্যা হয়েছিল।এখন আর সমস্যা নেই।চীন এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা এসে গেছে আরও আসবে।প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার ২জুলাই রাতে এবং শনিবার সকালে মডার্না ও সিনোফার্মের টিকা আসার কথা উল্লেখ করে বলেন, যেখানে টিকা পাওয়া যাচ্ছে,আমরা সেখানে যোগাযোগ করছি।আরও টিকা কিনে আনবো।চীন, রাশিয়া, জাপান, যুক্তরাষ্ট্র সব জায়গায় আমরা যোগাযোগ রেখেছি।

আমি আগেই বলেছি আমরা ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনবো।বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হচ্ছে। আমরা অনেক টাকা দিয়ে টিকা কিনে এনেছি।কিন্তু জনগণের স্বার্থে বিনামূল্যে টিকা দিচ্ছি।আমরা সব কর্মসূচিতে অগ্রাধিকার দেই গ্রামের মানুষ ও খেটেখাওয়া মানুষদের।প্রধানমন্ত্রী বলেন,টিকা দেওয়ার পর স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে। শিশুদেরও তো করোনা হচ্ছে।আমরা জেনেশুনে শিশুদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে পারি না। শুধু বাংলাদেশেই এই অবস্থা না সারা বিশ্বেই একই অবস্থা।বাবা-মায়েরা চায় না তাদের সন্তানরা এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাক।আর যাদের ছেলে-মেয়ে নেই তারা শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা বলেন।তিনি আরও বলেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে ‘কঠোর বিধিনিষেধ’ দেওয়া হয়েছে।আপনাদের প্রতি আহ্বান অন্তত নির্দেশনাগুলো মেনে চলুন।নিজে সুরক্ষিত থাকুন, অন্যকেও সুরক্ষিত রাখুন।সবাই এটা মেনে চললে আমরা করোনা নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবো।টিকা আসা শুরু হয়েছে  আর সমস্যা হবে না।

IPCS News/রির্পোটঃ