বুধবার ২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনে সার্ক দেশসমূহের সহযোগিতা বাড়াতে হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেটঃ ৪:০৭ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ০৯, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক:

ঢাকা, ০৭ এপ্রিল ২০১৯ খ্রি. আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনের মাধ্যমে সার্ক অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি। এ লক্ষ্যে সার্কের সদস্য দেশসমূহের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর জোর দেন তিনি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ রবিবার সকালে রাজধানীর মিরপুরে পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ (পিএসসি) এ আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমন:সার্ক প্রেক্ষিত (ঞৎধহংহধঃরড়হধষ ঈৎরসব: ঝঅঅজঈ চবৎংঢ়বপঃরাব) শীর্ষক আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ গুরুত্বারোপ করেন। পিএসসি’র ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার) এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন। পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ এর রেক্টর রৌশন আরা বেগম পিপিএম, এনডিসি এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজিগণ, ঢাকাস্থ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
ঝঅঅজঈ অঞ্চলের দেশগুলোর পুলিশ কর্মকর্তাগণের জন্য কোর্সটিকে গুরুত্বপূর্ণ আখ্যায়িত করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ ধরণের প্রশিক্ষণ আন্তঃরাষ্ট্রীয় বন্ধন, সহযোগিতা এবং আঞ্চলিক বন্ধুত্ব সুদৃঢ় করার ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ প্রশিক্ষণ সার্ক দেশের পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে সহযোগিতা বাড়াবে এবং পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সুযোগ ঘটাবে।
তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র পুলিশ স্টাফ কলেজ হিসেবে পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ পেশাদার ও দক্ষ পুলিশ বাহিনী গড়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে। আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ আয়োজনেও এ প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা রয়েছে। তিনি পুলিশ স্টাফ কলেজকে ঈবহঃবৎ ড়ভ ঊীপবষষবহপব হিসেবে গড়ে তোলার প্রয়াস অব্যাহত রাখার আহবান জানান।
ড. জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ ও এর সুদূর প্রসারী প্রভাব এ অঞ্চলের দেশগুলোর জন্য হুমকি হতে পারে। সার্ক অঞ্চলের দেশগুলেকে অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক সহযোগিতা বাড়ানোর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সন্ত্রাস দমনে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে সার্ক দেশসমূহের মধ্যে একটি শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম গড়ে তুলতে হবে। তিনি এ প্রশিক্ষণের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর মাধ্যমে দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের সন্ত্রাস, মানবপাচার, অস্ত্র ও মাদক পাচার রোধ করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
মোস্তাফা কামাল উদ্দীন বলেন, আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ শুধু একটি রাষ্ট্রকেই আক্রান্ত করে না পুরো বিশ^কেই আক্রান্ত করে। পুলিশ স্টাফ কলেজ এ ধরণের প্রশিক্ষণের আয়োজন করে পারস্পরিক সহযোগিতা ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশ সরকার আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ তথা সন্ত্রাসবাদ, মানব পাচার, উগ্রবাদ ইত্যাদি সংক্রান্ত তথ্য বিনিময়ের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, যা এ অঞ্চলের দেশগুলোর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
সভাপতির বক্তব্যে রৌশন আরা বেগম সার্কভূক্ত দেশসমূহের পারস্পরিক সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি প্রশিক্ষণার্থী প্রেরণের জন্য সার্কভুক্ত দেশসমূহের প্রতি ধন্যবাদ জানান।
সার্ক দেশসমূহের পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের দুই সপ্তাহব্যাপী এ প্রশিক্ষণ কোর্সে ১৯ জন পুলিশ কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করছেন। এর মধ্যে ভারতের ২ জন, ভুটানের ২ জন, মালদ্বীপের ২ জন এবং বাংলাদেশের ১৩ জন পুলিশ সুপার রয়েছেন। কোর্সটি শেষ হবে আগামী ১৮ এপ্রিল।

Ipcs News/ রির্পোট