শুক্রবার ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

হোটেল মালিককে মৃত্যু হুমকি ও মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে সাংবাদ সম্মেলন

আপডেটঃ ১২:৩৯ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১২, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীতে চাঁদার দাবীতে মাস্তান দিয়ে হুমকি ও হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছে রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিঃ এর মালিক আবু উইসুফ মাসুদ।রবিবার ১১ এপ্রিল  বিকালে রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিঃ এ ,আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এ অভিযোগ জানান।লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হোটেলটির পরিচালক ( মালিক) আবু ইউসুফ মাসুদ ( ৪১ )।তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, বিবাদী মােঃ আনিসুর রহমান ( ৪৫ ) , পিতাঃ মৃতঃ নূর মােহাম্মদ , সাং – আহমেদ নগর , সপুরা , থানা – বােয়ালিয়া আমার ব্যবসায়ীক পার্টনার ছিলেন। কিন্তু আর্থিক সমস্যার কারনে ব্যবসায়ীক পার্টনারশীপ ছেড়ে দিতে চান।যা পরবর্তীতে কোর্ট এভিডেভিডের মাধ্যমে পার্টনারশীপ আমার নিকট হস্তান্তর করা হয়।

বিবাদী আনিসুর রহমান ব্যবসার সুবাদে আমার নিকট ২৩,০০,০০০ / – (তেইশ লক্ষ) টাকা পেতেন। উল্লেখিত  টাকা  ২০ মার্চে  পরিশােধের কথা থাকলেও প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণাধীন থাকায় উক্ত টাকার মধ্যে  ৯,০০,০০০/টকা- নগদ বিবাদীর বন্ধু মাে : আনােয়ার হােসেন এর মাধ্যমে পরিশােধ করি ।কিন্ত ৪ এপ্রিলের সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায়, ১ নং বিবাদীর ভাড়াটিয়া গুন্ডা বিবাদী আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ( ৪ র্থ তলা ) , বােয়ালিয়া এলাকার সামসুল ইসলাম এর ছেলে শিপন ( ৪৫ ) ও তার সন্ত্রসী বাহিনী আমার অফিসে এসে তারা, ১ নং বিবাদীর অংশের দাবীদার হিসেবে আবারাে ২৩ লক্ষ টাকা পুনরায় দাবী করেন বলেন, এই মুহুর্তে যদি তেইশ লক্ষ টাকা না দেন তবে হােটেলের মালিকানা বুঝিয়ে দিতে হবে।

বিবাদীরা আরাে বলেন টাকা না দিলে তারা প্রতিষ্ঠানটি তালা বন্ধ করে দিবেন। বিবাদীরা চলে যাওয়ার সময় আমাকে মেরে ফেলার হুমকিসহ আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।এরপর আমি নিজের ও আমার পরিবারের তারপর তার কথা ভেবে,ঘটনাটি বোয়ালিয়া থানা পুলিশকে অবহিত করি।সঙ্গে সঙ্গে উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক মোঃ শাহিনুর রহমান  সঙ্গীয় ফোর্সসহ আমার হোটেলে স্বশরিরে  উপস্থিত হয়ে  পরিবেশ শান্ত করেন এবং বিবাদী শিপনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময়  ঘটনা স্থলে উপস্থিত রাসিকের ১০ নং ওয়ার্ড আওয়ামিলীগ সভাপতি মোঃ জাফর তাকে (শিপনকে) ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করে ।

আমি সহ উপস্থিত সকলে সার্বিক বিষয় এবং সভাপতি জাফরের সম্মানের কথা ভেবে শিপনকে ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন এস আই শাহিন।সভাপতি জাফর আমার কোম্পানির প্যাডে জিম্মা নামায় সই করে শিপনকে নিয়ে যায়।ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী ১। রমজান আলী ( ২৯ ) , পিতা – আব্দুল মান্নান , সাং – উপশহর ১/২৬০ থানা – বােয়ালিয়া , জেলা – রাজশাহী , ২। কৌশিক আহম্মেদ ( ৩২ ) , পিতাঃ মােঃ দুদু মিয়া , সাং- ১৩২/১ উপশহর , থানা – বােয়ালিয়া , মহানগর রাজশাহীসহ আরাে অনেকেই  বিষয়টি জানেন ।

পরবর্তীতে ১ নং বিবাদী স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমাকে ঘায়েল করতে না পেরে, ৪ এপ্রিল  রাজশাহী সি এম এম কোর্টে ১৪৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে।যা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন।বিবাদী আনিস মামলা করেও ক্ষান্ত হননি, তিনি এপ্রিলের ৭ তারিখে আনুমানিক সকাল ১১.৩০ ঘটিকার সময় আমার উপস্থিতে তার স্ত্রীকে সাথে নিয়ে আমার হোটেলে এসে স্টাফদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেধ এবং বলেন, প্রয়োজনে তোদের মালিককে গুম করে  আমি এই হোটেলের মালিক হব।

তার এমন হুমকির প্রেক্ষিতে ৮ এপ্রিল ২০২১ তারিখে বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী ( জিডি) করি।যার  নাম্বার ৩৭৪।আমি তার এই হুমকি ও মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।সেইসাথে ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে  আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান।
এবিষয়ে বিবাদী আনিসুর রহমান আনিসের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। বলে তার কোন বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

IPCS News/রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।