শনিবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রাসিকের মশা নিয়ন্ত্রণে লার্ভিসাইড ব্যবহার কার্যক্রম শুর

আপডেটঃ ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ২৭, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

মশা নিয়ন্ত্রণে লার্ভিসাইড ব্যবহার করবে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন।২৬ মার্চ শুক্রবার থেকে ৩০টি ওয়ার্ডে একযোগে মশার লার্ভা ধ্বংসে লার্ভিসাইড ব্যবহার কার্যক্রম শুরু করছে রাসিক।২৫ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেলে মশা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালনা সম্পর্কে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সকল ওয়ার্ড সচিব ও ওয়ার্ড সুপারভাইজারদের নিয়ে  সমন্বয় সভায় এই তথ্য জানানো হয়।সভা থেকে যথাযথ ও সুষ্ঠুভাবে লার্ভিসাইড ব্যবহারে ওয়ার্ড সচিব ও ওয়ার্ড সুপারভাইজারদের দিক-নির্দেশনাও প্রদান করা হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু।তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, সর্বশেষ ২০১৪ সালে মশা নিয়ন্ত্রণে লার্ভিসাইড ব্যবহার করেছিল রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন।২০১৪ সালের পর থেকে এতোদিন মশার লার্ভা ধ্বংসে ডিজেল ও কোরোসিন ব্যবহার এবং ফগার মেশিনে কীটনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে।এবার মশা নিয়ন্ত্রণ বিশেষ করে আগামী রমজান মাসে মশার জন্য নগরবাসীকে যাতে কষ্ট করতে না হয়, সেটিকে লক্ষ্য রেখে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন  লার্ভিসাইড ক্রয় করার অনুমোদন দেন।এরপর ২ হাজার লিটার লার্ভিসাইড ক্রয় করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে লার্ভিসাইড ব্যবহার কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

এতে করে  ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে বলে  আশাবাদ ব্যক্ত করেন।সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য সচিব ও প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন বলেন, ফগার মেশিনে কীটনাশক স্প্রে ও ডিজেল-কোরোসিন ব্যবহার পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারণ।তার পরও মশা নিয়ন্ত্রণে বাধ্য হয়ে আমাদের এগুলো ব্যবহার করতে হয়েছে।মশা নিয়ন্ত্রণে সবচেয়ে উত্তম পন্থা হচ্ছে মশার উৎসস্থলের মশার ডিম ধ্বংস করা।সেটি যথাযথভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব হয় লার্ভিসাইড ব্যবহারে।এবার সেই কার্যক্রম শুরু করছি। মশার লার্ভা ধ্বংসে লার্ভিসাইড ব্যবহারের কারণে মশা নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্দেশনায় ও কাউন্সিলরবৃন্দের সহযোগিতায় এই কার্যক্রম যথাযথভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশা করছি।শিগগিরই এর সুফল পাবেন মহানগরবাসী।সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন বলেন, মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের দিকনির্দেশনায় আমরা মশা নিয়ন্ত্রণে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছি।দেশের অন্যান্য সিটির তুলনায় রাজশাহী সিটির মশা অনেকটায় নিয়ন্ত্রণে।মশা নিয়ন্ত্রণে নাগরিকদের সচেতন থাকতে হবে।

সভায় আরো বক্তব্য দেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেডিকেল অফিসার ডা. তারিকুল ইসলাম।সভা সঞ্চালনা করেন রাসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোস্তাফিজ মিশু।সভায় বিভিন্ন ওয়ার্ডের সচিব ও সুপারভাইজাররা বক্তব্য দেন।

IPCS News/রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।