বুধবার ২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১১ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন চারিদিক গুলশান কাঁচাবাজারে

আপডেটঃ ১২:২০ অপরাহ্ণ | মার্চ ৩০, ২০১৯

অনলাইন সংস্করণ

রাজধানী ঢাকার গুলশান-১ এর উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কাঁচাবাজারের আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। পাশের শপিং সেন্টারের ৩য় তলায়ও আগুন ছড়িয়ে পড়েছিল। সেটি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। তবে ধোঁয়ার কাছেও যাওয়া যাচ্ছে না।আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিটের সঙ্গে সেনা এবং নৌবাহিনীর ২টি ইউনিট যুক্ত হয়ে কাজ করছে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল নেওয়াজ জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কাঁচাবাজারের আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে এখানে আগুন নেভানোর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই। আগের ঘটনার পর এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে তিন থেকে চারবার মার্কেট কর্তৃপক্ষকে নোটিশ দেয়া হয়েছিল তবে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

আজ ভোর পৌনে ৬টার দিকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে জানা গেছে। এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

গত বছরের ২ জানুয়ারি একই জায়গায় আগুন লেগেছিল।ডিএনসিসির মেয়র আতিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে জানিয়েছেন যে ,আপনারা জানেন এর আগেও এখানে আগুন লেগেছিল। কেন বারবার এই অগ্নিকাণ্ড হচ্ছে সেটা খতিয়ে দেখা হবে। এখন সময় এসেছে স্থায়ী সমাধান করার।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানিয়েছে, আগুন নিয়ন্ত্রণে তাদের ২০টি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।রাজধানীর গুলশানের ডিএনসিসি মার্কেটে কাঁচাবাজারে সুগন্ধি (পারফিউম) বিক্রির দোকান থেকে আগুন লাগে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিস, স্থানীয় দোকান মালিক ও কর্মচারীরা এ কথা বলেছেন।তবে এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।ডিএনসিসি মার্কেটের একটি দোকানের মালিক শাহদাত হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, আগুন লাগার ঘটনাটি ভোরে ঘটেছিল বলে এখানে তেমন কেউ ছিল না। মার্কেটের পূর্ব পাশে হঠাৎ করে বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। সেখানে সুগন্ধির দোকান রয়েছে। সেখান থেকে আগুন লাগে বলে তাঁরা শুনেছেন।

ছবি: সংরক্ষিত

সকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, সুগন্ধির দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ডিএনসিসির ওই মার্কেটে ১৫০টির বেশি দোকান রয়েছে। এর মধ্যে পুরো কাঁচাবাজার এলাকার সব দোকান মারাত্মকভাবে পুড়েছে।সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিটি দোকানের ফ্রিজগুলো মারাত্মকভাবে পুড়েছে। সেখানে দোকানিরা তাঁদের শেষ সম্বলটুকু খুঁজছেন।ঘটনার তদন্তে ফায়ার সার্ভিস পাঁচ সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

Ipcs News/রির্পোট