বুধবার ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

চর দখলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ -৫ জনসহ আহত -১৫

আপডেটঃ ৮:১০ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় পদ্মার চরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে ৫ জন গুলিবিব্ধসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার চৌমাদিয়া চরে এই ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।সংঘর্ষে আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করা হয়।পরে অবস্থার অবণতি হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক গুলিবিদ্ধ ৪জনসহ মোট ৯ জনকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পদ্মার চরের মধ্যে চকরাজাপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের চৌমাদিয়া চরের মজনু হোসেন দর্জি ও দিলা ইসলাম ব্যাপারীর মধ্যে জমির আগাছা পরিস্কার করাকে কেন্দ্র করে বিরোধের সৃষ্টি হয়।এই বিরোধকে কেন্দ্র করে রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উভয়ের মধ্যে প্রথমে কথাকাটাকাটি হয়।

পরে এই ঘটনার জের ধরে উভয়পক্ষ বন্দুক, লাঠি, হাসুয়া, লোহার রড়সহ দেশিয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।এতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন চৌমাদিয়া চরের আদম আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৩০), অলি ঢালীর ছেলে লিটন ঢালী (৩৫), সামসুল ইসলামের ছেলে দুলাল দর্জি (৩০), দিলু দর্জির স্ত্রী মরিয়ন বেগম (৩৫)। এদিকে নুরুল ইসলামের ছেলে ইদ্রিস আলী (৪০), আলিম আলী দর্জির ছেলে ইয়ার আলী (৪৫), সেকেন্দার আলীর ছেলে ইব্রাহীম হোসেন, মজনু দর্জি লোহার রড়ের আঘাতে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্তসহ মোট ৬ জন আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রের দায়িত্বরত চিকিৎসক সোলাইমান হোসেন জানান, আহতদের মধ্যে ইদ্রিস আলী ছাড়া সবাইকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।প্রত্যক্ষদর্শী সোহেল রানা, সোলাইমান হোসেন, সুফিয়ান হোসেনসহ কয়েকজন জানান, মজনু হোসেন দর্জির কলা বাগানের সাথে দিলা ইসলাম ব্যাপারীর জমি রয়েছে।সেই জমিতে আগাছা পরিস্কার করার জন্য দিলা ইসলাম ব্যাপারি আগুন দেয়।সেই আগুনে মজনু দর্জির কলা বাগানের ক্ষতি হয়।এই বিষয়টি দিলা ইসলাম ব্যাপারীকে জানাতে গেলে উল্টো মজনু দর্জিকে মারপিট করা হয়।এর জের ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।পক্ষের মধ্যে নিয়ে একে উপরের মধ্যে সংর্ঘষ হয়।

এ বিষয়ে বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আসি।বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।পুনরায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।এখন পর্যন্ত কেউ এই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেনি।তবে পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান, পুলিশের এই কর্মকর্তা।

IPCS News/রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।