বুধবার ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

এটি এম শামসুজ্জামানের মৃত্যুতে শোকের ছায়া বিনোদন জগতে

আপডেটঃ ১:১৮ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

আবু তাহের মোহাম্মদ শামসুজ্জামান সংক্ষেপে এটিএম শামসুজ্জামান হিসেবে অধিক পরিচিত ছিলেন।রাজধানী সূত্রাপুরের নিজ বাসায় আজ সকাল ৯ টার দিকে মৃত্যুবরন করেন এটিএম শামসুজ্জামান ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নইলাহি রাজিউন।জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন।শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে গত বুধবারও তাকে হাসপাতালে যেতে হয়েছিল।শুক্রবার বিকালে সেখান থেকে বাসায় ফিরেছিলেন তিনি।সকালে পরিবারের সদস্যরা নাস্তার জন্য ডাকতে গিয়ে বুঝতে পারেন, তার ঘুম আর ভাঙবে না। তার মৃত্যুর খবরে ছুটে আসে শেষ এক নজর দেখার জন্য বিনোদন জগতের সুভাকাঙ্খী ও ভক্তরা।জুরাইনের স্থানীয় মসজিদে বাদ যহোর জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৮০বছর।

এটিএম শামসুজ্জামানের ১৯৪১ সালের ১০ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর দৌলতপুরে নানাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।গ্রামের বাড়ি লক্ষীপুর জেলার ভোলাকোটের বড় বাড়ি আর ঢাকায় থাকতেন দেবেন্দ্রনাথ দাস লেনে।একজন বাংলাদেশী অভিনেতা, পরিচালক, কাহিনীকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপকার ও গল্পকার।অভিনয়ের জন্য আজীবন সম্মাননাসহ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন ছয় বার।

চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে; ম্যাডাম ফুলি (১৯৯৯), চুড়িওয়ালা (২০০১) ও মন বসে না পড়ার টেবিলে (২০০৯) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ কৌতুক অভিনেতা বিভাগে; এবং চোরাবালি (২০১২) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে পুরস্কৃত হন।এছাড়া, ৪২তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের সময় তিনি আজীবন সম্মাননায় ভূষিত হয়েছিলেন।শিল্পকলায় অবদানের জন্য ২০১৫ সালে তিনি বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হন।

IPCS News/রির্পোট।