মঙ্গলবার ১৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

দৃষ্টিনন্দন প্রজাপতির আদলে স্থাপিত রঙ্গিন সড়কবাতির আলোয় ঝলমলে রাতের রাজশাহীর

আপডেটঃ ৪:৪৯ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী মহানগরীর বিলসিমলা রেল ক্রসিং থেকে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যন্ত ফোরলেন সড়কে রঙ্গীন প্রজাপতি আদলে দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সড়কবাতি বসানো হয়েছে।সড়কের মাঝে পোলগুলোতে দিনের বেলা দেখে মনে হয় বসে আছে রং-বেরঙের প্রজাপতি।সন্ধ্যা হলেই সেই প্রজাপতির ডানায় জ্বলে উঠে আলো।দৃষ্টিনন্দন এই প্রজাপতির ডানা থেকে বিস্ফোরিত রং-বেরঙের আলোকিত হয়ে উঠে মহানগরীর সড়ক।১১ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মহানগরীর বহরমপুরের সড়কজুড়ে এই নান্দনিক আলোকায়নের উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।উন্নত বিশ্বের নামীদামী শহরগুলোর ন্যায় বাংলাদেশের  প্রথম সিটি হিসেবে রাজশাহীর মহাসড়কে এ ধরণের দৃষ্টি নন্দন সড়কবাতি সংযোজিত হলো।এর ফলে মহাসড়কে সড়কবাতির মাধ্যমে আলো ঝলমলে হলো ৪ দশমিক ২ কিলোমিটার সড়ক ও আশপাশের এলাকা।

সড়কবাতির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাসিক মেয়র বলেন, বিলসিমলা রেল ক্রসিং থেকে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যন্ত টু লেনের সড়ককে ফোরলেনে উন্নীত করা হয়েছে।বাইরের দেশ থেকে আমদানি করে সুদৃশ্য পোল ও লাইট সংযোজন করা হয়েছে।আজকে উদ্বোধন করা হলো।এটির মাধ্যমে রাজশাহীতে নতুন একটি মাত্রা পেলো।কারণ এরকম সুদৃশ্য পোল ও বাতি বাংলাদেশের আর কোন শহরে দেখিনি।এইসব সড়কবাতি শুধু আলো আর নিরাপত্তা বাড়াবে তা নয়, সাথে সৌন্দর্য্যও বৃদ্ধি পাবে।মেয়র আরো বলেন, উপশহর থেকে মালোপাড়া পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ কাজ শেষ পর্যায়ে।আলিফ লাম মিম ভাটা থেকে বিহাস পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ শেষ হয়েছে।এছাড়া আলুপট্টি থেকে তালাইমারি পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণের কাজ চলছে।

এই সড়কগুলোতে দৃষ্টিনন্দন সড়কবাতি লাগানো হবে।পদ্মাপাড়ে দৃষ্টিনন্দন ২টি ওভার বিজ্র করা হয়েছে।ব্রিজ দুইটিতে গ্রাফিটি করা হচ্ছে।নানা রঙে আলপনায় রঙিন করা হচ্ছে শহরটি।এভাবেই রাজশাহীকে অন্যতম দৃষ্টিনন্দন ও বাসযোগ্য শহর হিসেবে গড়ে তোলা হবে।মহানগরীর পশ্চিমের প্রবেশ দ্বার কাশিয়াডাঙ্গা মোড় হতে বিলসিমলা রেল ক্রসিং পর্যন্ত ৪ দশমিক ২ কিলোমিটার সড়কটিতে ১৭৪টি দৃষ্টিনন্দন বৈদ্যুতিক পোল বসানো হয়েছে।প্রতিটি পোলে রয়েছে দুইটি করে এলইডি বাল্ব।১৭৪টি বৈদ্যুতিক পোলে ৩৪৮টি আধুনিক দৃষ্টিনন্দন এলইডি বাল্ব।যা প্রজাপতির মতো ডান মেলে রয়েছে।দৃষ্টিনন্দন এ বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী বাতিগুলো অটোলজিক কন্ট্রোলারের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে অন-অফ হবে।
আধুনিক দৃষ্টিনন্দন এ সড়কবাতিগুলো স্থাপনের ফলে নাগরিক নিরাপত্তা বৃদ্ধি ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন ঘটবে।

রাত্রিকালীন গাড়ী চলাচলে গতির সঞ্চার হবে।আধুনিক বসবাসযোগ্য সুন্দর পরিচ্ছন্ন সবুজ নগরীকে আরো আধুনিক সাজে সজ্জিত করতে এটি একটি নতুন মাত্রা যোগ হলো।বিলসিমলা রেলক্রসিং হতে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যন্ত সড়ক আলোকায়ন কাজটি সম্পন্ন করতে ব্যয় হচ্ছে ৫ কোটি ২২ লাখ টাকা।রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়নে (১ম সংশোধিত) ১৯৮ কোটি টাকার প্রকল্পের আওতায় ৫২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে বিলসিমলা রেলক্রসিং থেকে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যন্ত সড়কটি ৩০ ফুট থেকে ৮০ ফুটে উন্নীত করা হয়েছে।সড়কের দুই পাশে ১০ ফুট চওড়া ফুটপাত ও রাস্তার দক্ষিণ পাশে ৮ ফুট বাইসাইকেল লেন নির্মাণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া সড়কটির উভয়পাশের আরসিসি ড্রেন নির্মাণ করা হয়েছে।নির্মাণ করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন আইল্যান্ড।সবুজায়নের জন্য আইল্যান্ডে ইতোমধ্যে বৃক্ষরোপণ করা হয়েছে।আলোকায়নের জন্য সড়ক আইল্যান্ডে বাসনো হয়েছে দৃষ্টিনন্দন লাইট ও পোল।উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন, রাসিক মেয়রকন্যা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা, রাসিকের পানি ও বিদ্যুৎ স্থায়ী কমিটি সভাপতি ও ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুজ্জামান, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসএম মাহবুবুল হক পাভেল, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম তজু।

এছাড়াও ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন, ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ারুল আমিন, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হাসান বাচ্চু, প্যানেল মেয়র-৩ ও সংরক্ষিত ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তাহেরা খাতুন, সংরক্ষিত ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন, নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক ও বিদ্যুৎ) রেয়াজাত হোসেন, সহকারী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান সুইট, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আসাদুল ইসলাম সুমন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী তানভীর হাসান সজীব উপস্থিত ছিলেন।

IPCS News/রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।