শনিবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভরা মৌসুমে রাজশাহীর সব্জি ও চালের বাজারে অস্থিরতা

আপডেটঃ ১২:২২ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১০, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

ভরা ধানের মৌসুমে কমছে না চালের দাম। সেই সাথে অপরিবর্তিত রয়েছে তেল ও সব্জির দাম।দাম বেশি থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।যার কারণে বাজারে আগের তুলনায় বেঁচা বিক্রি অনেকটা কমে গেছে বলে জানান বিক্রেতারা।৯ জানুয়ারি শনিবার ,নগরীর সাহেববাজার সবজিপট্টি ও চালের বাজার ঘুরে দেখা যায়, অপরিবর্তিত রয়েছে চালের দাম।প্রতিকেজি আটাশ চাল ৫৪ থেকে ৫৬ টাকা, মিনিকেট চাল ৫৮ থেকে ৬০ টাকা, চিনিগুড়া চাল ৯৫ থেকে ১০০ টাকা, বাসমতি চাল ৬৫ টাকা, গুটি স্বর্ণা ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।একই সাথে খোলা সয়াবিন তেল ১০০ থেকে ১০৮ টাকা এবং প্যাকেটজাত সয়াবিন তেল ১১৫ থেকে ১২০ টাকা লিটার দরে পাওয়া যাচ্ছে।ডালের মধ্যে মসুরের ডাল ১০০ টাকা, মুগের ডাল ১৩৫ টাকা, কালাইয়ের ডাল ১৩৫ টাকা, বুটের ডাল ৮০ টাকা, এ্যাংকরের ডাল ৪০ টাকা দরে মিলছে।অন্য পণ্য কিছুটা কম থাকলেও, চালের দাম বেশি হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করছে ব্যবসায়ীরা।চাল আমদানি করা হলেও দাম কমার কোনো উপায় আপাতত দেখছে না তারা।

চালের দামের সাথে অপরিবর্তিত রয়েছে সবজির দাম।গত সপ্তাহের মতো নতুন আলু বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়।সেই সাথে বেগুন ২৫ টাকা, পেঁপে ২০ টাকা, সীম ৩০ টাকা, টমেটো ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বাধাকপি-ফুলকপি ১৫ থেকে ২০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা, গাজর ২০ থেকে ৩০ টাকা, মটরছুটি ৭০ টাকা, পেঁয়াজের ফুলকা ও মূলা ১০ টাকা, সালগম ৪০ টাকা, কচুরলতি ৪০ টাকা, করলা ৮০ টাকা, জলপাই ৬০ টাকা, কলা ১৫ টাকা হালি, কাঁচা মরিচ ৯০ থেকে ১০০ টাকা, পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, আদা ৮০ থেকে ৯০ টাকা, রসুন ৯০ থেকে ১০০ টাকা, লাল শাক, সবুজ শাক, পুঁইশাক, পালং শাক ১৫ থেকে ২৫ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে।

সবজি বিক্রেতারা জানান, সবজির দাম কয়েক সপ্তাহ আগে কমলেও গত সপ্তাহ থেকে দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।সবজি প্রায় অনেক জমি থেকে চাষীরা তুলে নিয়েছে যার ফলে সবজি বেশি দামে কিনতে হচ্ছে।আর দাম দিয়ে বিক্রি করছি।তবে বাজারে বেঁচা বিক্রি তেমন নেই।মাছ ও মাংসের বাজার ঘুরে দেখা যায়, মাছের দাম আগের মতই রয়েছে।মাছ ব্যবসায়ী মইনুর ইসলাম জানান, মাছের বাজার প্রথম থেকেই কম দামে যাচ্ছে।যার কারণে অনেক ক্রেতারা মাছ কিনছে।প্রতিকেজি ইলিশ মাছ ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

এছাড়া চিংড়ি মাছ ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা, রুই মাছ ১৮০ থেকে ৩০০ টাকা, কাতল মাছ ২০০ থেকে ৩৫০ টাকা, মিরকা মাছ ১২০ টাকা থেকে ১৮০ টাকা, পাঙ্গাস মাছ ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা, বোয়াল মাছ ১৫০ থেকে ৫৫০ টাকা, সিলওয়ার কার্প ১০০ থেকে ২০০ টাকা, বাটা মাছ ১২০ থেকে ১৬০ টাকা, সরপুঁটি ১৪০ টাকা, দেশি কৈ মাছ ৪০০ টাকা, দেশি মাগুর ৫০০ টাকা দরে মিলছে।

মাংসের মধ্যে গরুর মাংস ৫৪০ টাকা, খাসি ৮৪০ থেকে ৮৫০ টাকা, বকরি ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা, মুরগির মধ্যে বয়লার মুরগি ১২০ থেকে ১২৫ টাকা, লেয়ার ১৮০ টাকা, সোনালি ১৮০ টাকা, কক ১৭৫ টাকা, হাঁস ২৭০ টাকা এবং মুরগির সাদা ডিম ২৪ টাকা ও লাল ডিম ২৮ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।