সোমবার ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে স্ত্রী ও সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা

আপডেটঃ ২:৫০ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৫, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীর পুঠিয়ায় নিজ স্ত্রী ও ৫ মাসের শিশু সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে মাদকাসক্ত ফিরোজ আলী (৩৫)।নিহত স্ত্রীর নাম পলি খাতুন (২৭) ও শিশু সন্তানের নাম ফারিহা।৪ জানুয়ারি সোমবার গভীর রাতে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার গোপালহাটি গ্রামের ফকিরপাড়া এলাকায় মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটে।৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকালে ঢাকা গাবতলী এলাকা থেকে ঘাতক স্বামী ফিরোজকে গ্রেফতার করে পুলিশ।বর্তমানে তাকে ঢাকা থেকে রাজশাহী নিয়ে আসা হচ্ছে।ফিরোজ আলীর বাবার নাম হাসিব আলী।

ফিরোজের আড়াই বছরের শিশু পুত্র ফাহিম আলী বেঁচে যায়।রাত দেড়টার দিকে ফাহিমের কান্না শুনতে পেয়ে ফিরোজের বাবা মা ঘরে ঢুকেন।এসময় তারা পলি ও ফারিহাকে বিছানায় অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ফিরোজ আলী বিয়ের আগে থেকেই মাদকাসক্ত ছিল।চার বছর আগে পুঠিয়া পৌরসভার কৃষ্ণপর পশ্চিমপাড়া এলাকার জুলহাস আলীর মেয়ে পলি খাতুনের সাথে বিয়ে হয় ফিরোজের।বিয়ের পর থেকে নেশার টাকার জন্য বাড়ি বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করতো।এ নিয়ে স্ত্রীর পলির সাথে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।

মাঝে মধ্যে ফিরোজ তার স্ত্রীকে শারিরিক নির্যানত চালাত।রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে  জানান, ফিরোজ আরপিএল এলিগেন্স বাসে সুপারভাইজার হিসেবে কাজ করতো।একটি সড়ক দুর্ঘটনায় তার এক পা কাটা পড়ে।এরপর থেকে অতিমাত্রায় সে হেরোইনে আসক্ত হয়ে পরে।মাঝেমধ্যে টাকা চাওয়ায় স্ত্রীর পলি খাতুনের সাথে প্রায়ই ঝগড়া করতো ফিরোজ।এই রাগে স্ত্রী ও কন্যাশিশুকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।গলায় আঘাতের চিহ্ন না থাকায় এবং পাশে বালিশ পড়ে থাকায় ধারণা করা হচ্ছে , বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।