শনিবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ব্রোকলি চাষ করে বিপুল লাভের আশায় দিন গুনছেন কৃষক সোলায়মান মিয়া।

আপডেটঃ ১২:৪৬ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৫, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

ব্রোকলি জাতের(সবুজ ফুলকপি) চাষ করে বিপুল লাভে আশায় স্বপের দিন গুনছেন কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার কৃষক সোলায়মান।এ সময়ে ফুলকপি ভরা মৌসুমে ব্রোকলি (সবুজ ফুলকপি)দাম ভালো পাবে বলে আশা করেন তিনি।এ বছর তিনি প্রথমবার এ সবজি চাষ করেন ৪৫ শতাংশ জমিতে,জমিতে এখন ব্রোকলি(সবুজ ফুলকপি) বাজার উপযোগি হয়েছে।বর্তমান বাজারে অনান্য ফুলকপি দাম এর তুলনায় এর দাম বেশি।কৃষক সোলায়মান জানান, জমিতে ৬ হাজার চারা রোপন করি, রোপনের পর থেকে কৃষি অফিসের পরামর্শ নিয়ে পরিচর্যা করে যাচ্ছি।

এ সবজি অল্প সয়মে অনান্য সবজির চাইতে চাষ করে লাভবান হওয়া যায়।তিনি আরো  বলেন,এ বছর লাভের মুখ দেখলে আগামীতে এ সবজি চাষ করবেন বলে জানান তিনি।কৃষকের ব্রোকলি চাষ করতে এপর্যন্ত খরচ হয়েছে ৪০ হাজার টাকা আরো লাগতে পারে ১০ হাজার টাকা এখন বাজারে যে দাম রয়েছে তাতে আমি ৩ লক্ষ টাকা বিক্রি হবে।লাভ হবে ২ লক্ষ ৫০ হাজারর টাকা।আর এক  সপ্তাহের পর ব্রোকলি কে বাজারে বিক্রি করতে পারবো।

ব্রোকলি চাষ করে লাভবান হচ্ছেন বলে জানান,উপজেলার লোহাজুরী ইউনিয়নের দক্ষিণ লোহাজুরী  গ্রামের মৃত দুলা মিয়ার ছেলে কৃষক মোঃ সোলায়মান মিয়া।উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শে ও সহায়তায় উপজেলার কৃষকরা আগাম সবজি সহ এ  জাতের এ ফুলকপি চাষ করে ভালো দাম পাচ্ছেন।
উপজেলা লোহাজুরী ব্লকে কর্মরত উপসহকারী কৃষি অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান জানান,এটি একটি লাভ জনক কৃষি।যদিও এটি একটি বিদেশী সবজি কিন্তু বাংলাদেশে এর চাষ সম্ভব । এর বাজার মূল্যও অনেক।

এছাড়া ও ব্রোকলিতে ( সবুজ ফুলকপি) আয়রন ক্যালসিয়াম, ফসফরাস,ভিটামিন ডি ফাইবার এবং প্রচুর ভিটামিন সি রয়েছে।কৃষিকে বানিজ্যিক ভাবে প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা ব্যাপক ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।আগ্রহী কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের  পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি।তারই ধারাবাহিকতায় মোঃ সোলায়মান মিয়াকে ব্রোকলি চাষের পরামর্শ প্রদান করি এবং তাতে সে আগ্রহী হয়ে ব্রোকলি চাষ করে।৪৫ শতক জমি চাষে তার খরচ হয় প্রায় চল্লিশ হাজার টাকা।বাজার মূল্য ভাল হলে সবমিলিয়ে চার থেকে পাঁচ লক্ষ টাক বিক্রি হতে পারে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মুকশেদুল হক জানান,আমরা বাণিজ্যিক কৃষি সম্প্রসারণের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি।সৌখিন ও সম্মানজনক কর্মসংস্থানের জন্য বাণিজ্যিক কৃষিতে আত্বনিয়োগ করার জন্য কটিয়াদীর কৃষকদের বিভিন্ন প্রশিক্ষন ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।বিভিন্ন ফলবাগান, আগাম রবিশস্য, নানারকম উচ্চমূল্যের ফসল  চাষাবাদের মাধ্যমে কৃষক লাভবান হচ্ছে।কটিয়াদীতে প্রথমবারের মতো ব্রোকলি চাষে চাষে সফল লোহাজুরীর কৃষক মোঃ সোলায়মান।আমরা লাভজনক কৃষি তথা বাণিজ্যিক কৃষি সম্প্রসারণের অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

লোহাজুরী  ব্লকে  কর্মরত উপসহকারী কৃষি অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন,এটি একটি লাভ জনক কৃষি।যদিও এটি একটি বিদেশী সবজি কিন্তু বাংলাদেশে এর চাষ সম্ভব।এর বাজার মূল্যও অনেক।এছাড়া ও ব্রোকলিতে ( সবুজ ফুলকপি) আয়রন ক্যালসিয়াম, ফসফরাস,ভিটামিন ডি ফাইবার এবং প্রচুর ভিটামিন সি রয়েছে।কৃষিকে বানিজ্যিক ভাবে প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা ব্যাপক ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।আগ্রহী কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের  পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি।তারই ধারাবাহিকতায় মোঃ সোলায়মান মিয়াকে ব্রোকলি চাষের পরামর্শ প্রদান করি এবং তাতে সে আগ্রহী হয়ে ব্রোকলি চাষ করে।৪৫ শতক জমি চাষে তার খরচ হয় প্রায় চল্লিশ হাজার টাকা।বাজার মূল্য ভাল হলে সবমিলিয়ে চার থেকে পাঁচ লক্ষ টাক বিক্রি হতে পারে।

IPCS News /মোহাম্মদ মোস্তাফা জাকির, কিশোরগঞ্জ (কটিয়াদী) প্রতিনিধি।