শুক্রবার ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

নারীসহ ১৪ জন রোগী ধরা দালাল চক্রের সদস্য আটক

আপডেটঃ ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ | জানুয়ারি ০২, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল থেকে নারীসহ ১৪ জন রোগী ধরা দালালকে আটক করেছে পুলিশ।৩১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে রামেক হাসপাতালের বহির্বিভাগ ও জরুরী বিভাগে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।আটককৃতরা হলেন, রাজশাহীর রাজপাড়া থানাধীন লক্ষীপুর ভাটাপাড়া এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে নাইম হোসেন(৩২), কাজীহাটা এলাকার লক্ষন দাসের ছেলে প্রষাদ দাস (২৪), প্যারামেডিকেল এলাকার নিলু রহমানের ছেলে নিমু(২৩), কাজীহাটা এলাকার আবুল হামিদের ছেলে নাদিম(২৩), বুলনপুর এলাকার রাকিব ইসলামের ছেলে রকি(২০), কাজীহাটা এলাকার মৃত মোসলেম শেখের ছেলে সাইদুল ইসলাম(৫৫), সবুর আলীর ছেলে সামিউল ইসলাম(২৫), জসিমের স্ত্রী রুপালী ইয়াসমিন(৩৬), বোয়ালিয়া থানাধীন শেখপাড়া এলাকার আব্দুল্লাহের ছেলে ইউসুফ আলী(৪০), হেঁতেমখা কলাবাগান এলাকার মৃত সোনা মিয়ার ছেলে পলান মিয়া(৩৬), বর্ণালীর মোড় এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানা(২৬), দিগেন চন্দ্র ঘোষের ছেলে গৌতম কুমার ঘোষ(৩১), মতিহার থানাধীন কাজলা এলাকার আলফাজের স্ত্রী  ফারজানা ইয়াসমিন(২৫) ও কশিয়াডাঙ্গা থানধীন পলি খাতুন(৪০)।

বৃহস্পতিবার রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।এতে বলা হয়, মহানগর পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি) রাকিবুল ইসলাম এর নেতৃত্বে এসআই(নিঃ)/ সাইফুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সের সহযোগীতায় বেলা ১১টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বর্হিবিভাগ ও জরুরী বিভাগে ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় পুরুষ ও নারী সহ দালালচক্রের মোট  ১৪ জন সদস্যকে আটক করা হয়।আটককৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

জানা গেছে, পুলিশের হাতে আটককৃত দালালরা দীর্ঘদিন ধরে রামেক হাসপাতালের বহির্বিভাগ ও ইনডোরে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কম খরচে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে দিবে এমন প্রলোভন দেখিয়ে বাইরের নিম্নমাণের ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যায়।তাদের পছন্দের প্রতিষ্ঠানে নিয়ে গিয়ে কমিশনের বিনিময়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করায় ও নির্ধারিত মূল্যের থেকে বেশি টাকা আদায় করে।কেউ প্রতিবাদ করলে দালালরা তাদের উপর চড়াও হয় এবং মারমুখী আচরণ করে।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।