বৃহস্পতিবার ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

রাজশাহী রেলওয়ে কেন্দ্রিয় মসজিদের ইমামকে বেয়াদব বললেন এজিএম

আপডেটঃ ৬:০৬ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

রেলওয়ে পশ্চিম রাজশাহী কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমামকে অফিসে ডেকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এমন কি বেয়াদব বলে অপমান করেছেন খোদ পশ্চিম রেলের সহকারী ম্যানেজার(এজিএম) আমিনুল ইসলাম।বিষয়টি নিশশ্চিত করে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ইমাম নিজেই।তিনি জানান,তার স্ত্রীর অসুস্থার জন্য তিন দিন মসজিদ কতৃপক্ষকে জানিয়ে ছুটি নেন।২০ অগস্ট রাজশাহী রেলওয়ের এজিএম তাকে তার অফিসে ডেকে কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই, প্রথেম ধমকান এবং ফাকিবাজ ও বেয়াদব বলে গালিদেন।

তিনি তার সমস্যার কথা বলতে চাইলে এজিএম আরো ক্ষিপ্ত হন এবং অনেক বাজে মন্তব্য করে বলেন,তার বিরুদ্ধে চীফ ইলেক্ট্রিক ইন্জিনিয়রের অভিযোগ আছে।তার কাছে মাফ চেয়ে সমাধান কর আগে।একজন দায়িত্ববান রেল অফিসারের মারমুখী আচরন ও অশ্লীল কথায় মানষিক ভাবে মর্মাহত তিনি।তিনি আরো জানান,দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে মসজিদটিতে ইমামতি করে আসছেন।খাদেম না থাকায় তিনি মসজিদটিতে ঝাড়ুূদেয়া, মুছা, ওজুর যায়গা পরিস্কার করাসহ সকল কাজ তিনি একাই করে আসছেন।

তার তিন দিনের অনপস্থিতে কি হয়েছে, তিনি  কিছুই জানেন না।পরে এজিএমের কথামত তিনি চীফ ইলেক্ট্রিক ইন্জিনিয়ারে নিকট গেলে, তিনি বলেন  তিনি নামায পড়তে গিয়ে মসজিদে দূর্গন্ধ পেয়েছেন।এজন্য তিনি এজিএমকে জানিয়েছেন।এবিষয়ে এজিএমের সরকারী মোবাইল নাম্বারে( ৫:০৩ মিঃ) জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি নিজে ৫ ওয়াক্ত নামায পড়েন।ইমাম ও হুজুরদের তিনি সম্মান করেন।তাকে বকা বা গালি এমন কি কোন অসৌজন্য মূলক আচরনও তিনি করেননি বলে জানান।

তিনি আরো জানান,চীফ ইলেক্ট্রিক ইন্জিনিয়ারের  দেয়া মসজিদ অপরিস্কারের অভিযোগটি শুধুমাত্র তাকে অবহিত করা হয়েছে মাত্র।মসজিদটিতে নামায পড়া রেল কর্মচারীরা বলেন,আমরা মুসলমান,মসজিদের ইমামকে আমরা শ্রদ্ধা ও সম্মান করি।এজিএম একজন দায়িত্ববান ব্যাক্তি।ইমামকে ডেকে অপমান করা ঠিক হয়নি।এছাড়া একজন ইমামের সাথে, এজিএমের এমন আচরনে মর্মাহত রেলের কর্মরত কর্মচারী ও কর্মচারীরা।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।