বুধবার ২১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

মাদকে ভাসছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রাজারামপুর এলাকা

আপডেটঃ ৪:০৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা অন্তরগত রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ড এখন মাদকের স্বর্গরাজ্যে পরিনত হয়েছে।ওয়ার্ডের অলিগলি সর্বত্র হাত বাড়ালেই মেলে মাদক।গুটি কয়েক মাদক কারবারীদের ভয়াল ছোবলে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে যুব সমাজ।মাঝে মধ্যে র‌্যাব, পুলিশ, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সদস্যসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঝটিকা অভিযান চালিয়ে চুনোপুটি মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করলেও ধরা ছোয়ার বাহীরে রয়ে যায় রাঘোব বোয়ালসমতুল্য মাদক ব্যাবসায়ীরা।চাঁপাইনবাবগঞ্জের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নাকের ডগায় বসে অবাধে হেরোইন,ইয়াবা বড়ি, ফেনসিডিল, গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বিক্রি করলেও কেউ তাঁদের কিছু বলছে না।এমনও অভিযোগও রয়েছে, মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে দৈনিক,সপ্তাহিক ও মাসিক চাঁদা আদায় করেন অসাধু সাংবাদিক পাতি নেতা ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

জানা যায়, চাঁপাইনবাবঞ্জ পৌরসভা অন্তরগত রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ডের পোড়াপারা এলাকার মনজুর ইসলামের ছেলে নুর নবী, মৃত রুস্তম আলীর ছেলে আব্দুল রউফ,মৃত বিশু মন্ডলের ছেলে আশরাফুল হক,মৃত সাবেদ হকের ছেলে মেসবাউল হক,মৃত জহুরুল হকের ছেলে ইউসুফ আলী বিপ্লব,মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে মুকুল আলী পোড়া স্টান পাড়া এলাকারএলাকার মৃত বেলাল পাইকারের ছেলে মাজেদ বাউরিসহ কয়েক মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে পুরো রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।মাদকদ্রব্য মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এবং মাদকদ্রব্যের ব্যবসা করা অবৈধ হলেও রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ডে মাদকের জমজমাট ব্যবসা গড়ে তুলেছেন তারা।এসব মাদক ব্যবসায়ীর লক্ষ্য হচ্ছে কিশোর ও তরুণেরা।

এদের মাদক সিন্ডিকেটের কারনে ঘরথেকে বেরতে পারেনা কেউ।এমনকি স্থানীয় মেম্বার ও কাউন্সীলররাও জিম্মি হয়ে পড়েছেন তাদের কাছে।রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানান, উক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন যাবৎ চাঁপাইনবাবগঞ্জ থানার রাজারামপুর ৮নং ওয়ার্ড এলাকা থেকে মাদকের খুচরা ও পাইকারী ব্যবসা রমরমা ভাবে পরিচালনা করে গেলেও প্রশাসন তার টিকিটাও ছুতে পারছে না।প্রতিনিয়ত রাজারামপুর মালোপাড়া মোড় ও রাজারাম পুড় ২০ নং-২ সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়ের নিচে আন্ডার গ্রউন্ড ও বিলের ধার এলাকায়-বাইরের বিভিন্ন স্থান থেকে মাদকের খুচরা ও পাইকারী চালান কিনতে আসতে দেখা যায় দলে দলে।এদের বিক্রয়কৃত মাদকের তালিকায় আছে, গাঁজা, ফেন্সিডিল, হেরোইন, মরণ ণেশা ইয়াবা, বিদেশি মদ সহ সকল প্রকার ভ্রাম্যমান মাদক।থানার প্রত্যন্ত এলাকায় থেকে হরহামেশায় সকল প্রকার মাদক দিনের পর দিন বিক্রয় করে আসলেও অজ্ঞাত কারনে প্রশাসন রয়েছেন নিরব ভুমিকায়।

স্থানীও রাজনৈতিক নেতা ও সাংবাদিকরাও রয়েছে নীরব।এক কথায় বলা যায় রাজারামপুর এলাকায় এখন হাত বাড়ালেই মিলছে সকল প্রকার মাদক।এ ব্যাপারে স্থানীয় সুধিজন মাদক বন্ধ কল্পে এবং যুবসমাজকে রক্ষা করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের আসুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।রাজারামপুর ৭-৮-৯নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর সিদ্দিকা সিরাজুম মনিরা বুলু বলেন, আমাদের এলাকায় মাদকে ছেয়ে গেছে এই মাদক ব্যাবসায়ীদের অনেককেই ধরে নিয়ে যায় আবার কোন ক্ষমতার বলে বের হয়ে আসে জানিনা।অনেক সাংবাদিককে জানিয়ে কোন লাভ হয়নি।

খবর প্রকাশ করেনা-শুধু এলাকায় মাঝে মঝে ঘুরে বেড়ায় কিছু সাংবাদিক।চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ডিবি ওসি বাবুল উদ্দিন সরদার বলেন, এই মাদক ব্যাবসায়ী দের বিষয়ে আমরা কিছুই জানিনা আপনার মাধ্যমে জানলাম আমরা বিষয় টি খোজ নিয়ে যদি প্রমান পাই তাহলে ব্যাবস্থা নেব।একই কথা বলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোজাফফর হোসেন।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।