শনিবার ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

রাজশাহীতে আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা

আপডেটঃ ৬:৪১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৬, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীর দুর্গাপুরের হোজা গ্রামের আবদুল লতিফ মৃধাসহ সাতজনের বিরুদ্ধে  চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।চক্রটি বিভিন্ন অজুহাতে মানুষকে বেকায়দায় ফেলে বিপুল অংকের চাঁদা নেন তারা।এমন সংঘবন্ধ চক্রটিতে রয়েছে ছয় থেকে ১০ জনের মতো।চক্রটি পুকুরে বিষ দেওয়া, মারধর ও হত্যার হুমকি দিয়ে থাকে।টাকা না পেলে বিভিন্নভাবে হয়রানি করেন।এমন সব অভিযোগ তুলে ২৬ আগস্ট বুধবার দুপুরে রাজশাহীর আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ‘রূপালী মৎস খামার’র মালিক ওবাইদুল হক তুহিন (৫১)।তিনি রাজশাহী দুর্গাপুরের মাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা।চাঁদাবাজির মামলার আসামিরা হলেন- বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগের সাবেক সভাপতি আবদুল লতিফ মৃধা (৫৩) , ছেলে আখতারুজ্জামান অভি (২৫), লাদু প্রামাণিকের ছেলে লাল্টু প্রামানিক (৪৫), হোজা অন্তরকান্দি এলাকার নছিম উদ্দিনের ছেলে আজাহার আলী (৫৫), রহমত উল্লার ছেলে এনামুল হক (৩৮), চৌপুকুরিয়া এলাকার জামাত আলীর ছেলে কালাম হোসেন (৩৫)।মামলা সূত্রে জানা গেছে, মাছ ব্যবসায়ী ওবাইদুল হক তুহিনের ২০০ বিঘার পুকুর রয়েছে।

তিনি মাছের ব্যবসা করে জীবিকানির্বাহ করেন।সম্প্রতি সময়ে আসামিরা কয়েক দফা চাঁদা নিয়েছেন তুহিনের কাছে।সবমিলে প্রায় ১৫ লাখ টাকা নিয়েছে।গত ২২ আগস্ট সন্ধ্যায় আবদুল লতিফ মৃধা দুর্গাপুর উপজেলার হোজা ও পালিবাজারের মাঝামাঝি এলাকায় পথ রোধ করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।এসময় আসামিরা সবাই উপস্থিত ছিলেন।এসময় তুহিন আসামিদের জানায়, তার কাছে মাত্র ১৫ হাজার ৫৭০ টাকা রয়েছে।এছাড়া এতোগুলো (২০ লাখ) টাকা তার পক্ষে দেওয়া সম্ভব না।করোনাভাইরাসের কারণে তার (তুহিন) ব্যবসা ভালো হয়নি।তার উপরে আবার ব্যাংকে ঋণ রয়েছে।এমন কথার এক পর্যায়ে আসামিদের মধ্যে একজন পকেটে হাত ঢুকিয়ে টাকাগুলো বের করে নেন।এসময় সাত দিনের মধ্যে ২০ লাখ টাকা না দিলে হত্যা করে গুম করার হুমকিও দেন আবদুল লতিফ মৃধা।পরে তারা ঘটনাস্থল থেকে চলে যান।ব্যবসায়ী ওবাইদুল হক তুহিন বলেন, বিভিন্ন ব্যাংকের মধ্যে আল-আরাফা ব্যাংকে ৪০ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে।আসামিদের চাঁদা নেওয়ার চাপ অব্যহত থাকায় অনেকটাই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তিনি।দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খুরশিদা বানু কণা জানান, মামলার কাগজ থানায় আসেনি।আসলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।