মঙ্গলবার ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চারঘাটের ১২টি ডায়াগনস্টিক-ক্লিনিকের সবগুলোই অবৈধ

আপডেটঃ ৫:০০ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৬, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার ১২ টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সবগুলোই চলছে অবৈধভাবে।এসব বেসরকারি স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানগুলিকে উপজেলা স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে  অনুমতিপত্র ও লাইসেন্স নবায়ন করতে আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছে।গত ২৮ জুলাই (মঙ্গলবার) রাজশাহী সিভিল সার্জন ডাঃ মুহাঃ এনামুল হক ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ আশিকুর রহমান সরেজমিনে ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো পরিদর্শন করেন এবং পরিদর্শন শেষে তাদের লাইসেন্স নবায়নের জন্য আল্টিমেটাম দেয়া হয়।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলাটিতে প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ বসবাস করে।বৃহত্তম এই জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবার জন্য প্রতিষ্ঠিত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ ও জনবল নেই।এখানকার অধিকাংশ চিকিৎসক ব্যস্ত থাকেন ব্যক্তিগত প্র্যাকটিস নিয়ে।এসব কারণে উপজেলায় একের পর এক ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গড়ে উঠছে।উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ৪টি ক্লিনিক ও ৮টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার গড়ে উঠেছে।৪টি ক্লিনিকের মধ্যে একটির মাত্র লাইসেন্স রয়েছে, তবে সেটারও নবায়ন নেই।৮টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মধ্যে শুধুমাত্র ১টির লাইসেন্স রয়েছে, তবে তারও লাইসেন্স নবায়ন নেই।উপজেলার সবগুলো ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলি সবই অবৈধ ভাবে চলছে।এ বিষয়ে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আশিকুর রহমান জানিয়েছেন, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে উপজেলার প্রতিটি বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলির সরেজমিনে তথ্য নেয়া হয়েছে।সবগুলোর মধ্যে মাত্র দুইটি প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স রয়েছে।তবে তাদেরও লাইসেন্স নবায়ন নেই।সকল প্রতিষ্ঠানকে কাগজপত্র ঠিক করতে নিদৃস্ট সময় দেয়া হয়েছে।বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে কাগজপত্র না করলে, প্রতিষ্ঠান মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়াসহ ও সিলগালা করা হবে।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ।