সোমবার ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

অঝরে ভারি বর্ষণ, ভোগান্তিতে নগরবাসী-রাজশাহী

আপডেটঃ ১২:২৮ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৩, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহীতে সোমবার সন্ধা ৬ টার পরপরই কালো মেঘে ঢেকে যায় রাজশাহীর আকাশ।তারপর শুরু হয় ভারি বৃষ্টি বর্ষন।রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানায়, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রাজশাহীতে বৃষ্টি শুরু হয়।রাত ৮টা পর্যন্ত ১৮ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়।তখনও বৃষ্টি চলছিল।রাজশাহীতে গত কয়েকদিন ধরেই বৃষ্টি হচ্ছে।কিন্তু সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয় রোববার।৭৭ মিলিমিটারের ভারি বর্ষণে এ দিন তলিয়ে যায় নগরীর নিম্নাঞ্চলগুলো।সেই পানিই সোমবার পর্যন্ত কোথাও কোথাও নামেনি।এরই মধ্যে সোমবার আবার মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হয়।এতে পানি জমে রাস্তায়।রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানায়, এটি ভারি বর্ষণ।কম সময়ের মধ্যে এত বৃষ্টি অনেক দিন হয়নি।সম্প্রতি আম্ফানের প্রভাবে রাজশাহীতে সারারাত বৃষ্টিপাত হলেও পরিমাণ এত বেশি ছিল না।কিন্তু রোববার বিকেলের পৌনে তিন ঘণ্টায় প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে।সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বৃষ্টি চলছিলই।আবহাওয়া অফিস আরো জানায়, বিকেল ৩টা ১৮ মিনিটে বজ্রসহ বৃষ্টি শুরু হয়।সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রেকর্ড করা হয়েছে ৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি।তখনও বৃষ্টি থামেনি।আবহাওয়া অফিসের হিসাবে, ৬ ঘণ্টার মধ্যে শূণ্য থেকে ১০ মিলিমিটার বৃষ্টি হলে তাকে বলা হয় হালকা বৃষ্টি।মাঝারি বৃষ্টি ১১ থেকে ২২ মিলিমিটার।

২২ থেকে ৪৩ মিলিমিটার বৃষ্টিকে হালকা মাঝারি বৃষ্টিপাত হিসাবে ধরা হয়।এছাড়া ৪৪ থেকে ৮৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতকে ভারি বর্ষণ এবং ৮৮ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাতকে অতি ভারি বর্ষণ হিসাবে ধরা হয়।রোববার রাজশাহীতে ভারি বর্ষণ হয়েছে।এই বৃষ্টির প্রভাবে রাজশাহী নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট, গণকপাড়া, বোয়ালিয়া থানা মোড়, উপশহর, শালবাগান পলিটেকনিক, বর্ণালী মোড়, টিকাপাড়া, উপশহর,বিসিক শিল্প নগরী,তালাইমারিসহ বিভিন্ন নিচু এলাকায় পানি জমে যায়।এর মধ্যে বিসিক ও উপশহরের অবস্থা করুন।শুরু হয় বিদ্যুতেরও বিভ্রাট।এতে ভোগান্তিতে পড়েন নগরবাসী।

IPCS News /রির্পোট, আবুল কালাম আজাদ (রাজশাহী)।