শুক্রবার ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

‘আমরা জনগণের পুলিশ, মানবিক পুলিশ হওয়ার জন্য কাজ করছি’

আপডেটঃ ২:৩১ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৯, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম(বার) ঢাকা, ০৭ জানুয়ারি ২০২০ খ্রি. বলেছেন, বাংলাদেশ পুলিশ জনগণের পুলিশ, মানবিক পুলিশ হওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।জনগণের স্বপ্নের পুলিশ হওয়া আমাদের অঙ্গীকার।তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ জানুয়ারি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পুলিশ সপ্তাহে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন ‘তোমরা জনগণের পুলিশ’।বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথ ধরেই বাংলাদেশ পুলিশকে ‘জনগণের পুলিশ’ এ পরিণত করার জন্য আমরা নিরলস কাজ করছি।আইজিপি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এ বছর পালিত হবে ‘মুজিববর্ষ’।আমরা মুজিববর্ষের সাথে সঙ্গতি রেখে এবার পুলিশ সপ্তাহ ২০২০ এর প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছি ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’।আইজিপি আজ মঙ্গলবার সকালে পুলিশ সপ্তাহ ২০২০ উপলক্ষে আইজি’জ ব্যাজ এবং শিল্ড প্যারেড, অস্ত্র, মাদক ও চোরাচালান দ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী ইউনিটকে পুরস্কার প্রদানকালে একথা বলেন।পুলিশ প্রধান বলেন, জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে কাজ করছে পুলিশ।আমরা দেশকে জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত করবো।পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে আইজিপি বলেন, কোন পুলিশ সদস্য মাদক সেবন এবং মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলে তাকে কোন ধরণের ছাড় দেয়া হবে না।তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।আইজিপি বলেন, আমরা পুলিশের প্রতিটি ক্ষেত্রে সততা, জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে কাজ করছি।সম্প্রতি পুলিশে কনস্টেবল নিয়োগ স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হয়েছে, যা সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগকে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হিসেবে একাধিকবার উল্লেখ করেছেন।

এ ধারা অব্যাহত রাখতে আমাদের সকলকে কাজ করতে হবে।আইজিপি বলেন, আমরা থানাকে মানুষের আস্থা ও নির্ভরতার প্রতীক হিসেবে গড়তে চাই।থানা হবে জনগণকে সেবা প্রদানের মূল কেন্দ্রবিন্দু।থানার অফিসার ইনচার্জ হবেন জনগণের আস্থা ও নির্ভরতার প্রতীক।পুলিশ সপ্তাহ ২০২০ উপলক্ষে ২০১৯ সালে প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ৬০৫ জন পুলিশ সদস্যকে “IGP’s Exemplary Good Services Badge ” (আইজি’জ ব্যাজ) প্রদান করা হয়।বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম(বার) পুলিশ সদস্যদেরকে ব্যাজ পরিয়ে দেন।

২০১৯ সালে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারে ‘ক’ গ্রুপে সিএমপি, চট্টগ্রাম প্রথম, চট্টগ্রাম জেলা দ্বিতীয় এবং কুমিল্লা জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘খ’ গ্রুপে কক্সবাজার জেলা প্রথম, নরসিংদী জেলা দ্বিতীয় এবং যশোর জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘গ’গ্রুপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রথম, রাজবাড়ী জেলা দ্বিতীয় এবং শেরপুর জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘ঘ’ গ্রুপে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম প্রথম, র‌্যাব-৫, রাজশাহী দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-৮, বরিশাল তৃতীয় হয়েছে।‘ঙ’ গ্রুপেডিবি, ডিএমপি প্রথম, কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম, ডিএমপি দ্বিতীয় এবং ডিএমপির ওয়ারী বিভাগ তৃতীয় হয়েছে।

২০১৯ সালে মাদক দ্রব্য উদ্ধারে ‘ক’ গ্রুপে সিএমপি, চট্টগ্রাম প্রথম, কুমিল্লা জেলা দ্বিতীয় এবং চট্টগ্রাম জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘খ’ গ্রুপে কক্সবাজার জেলা প্রথম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা দ্বিতীয় এবং পটুয়াখালী জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘গ’ গ্রুপে লালমনিরহাট জেলা প্রথম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ দ্বিতীয় এবং বিএমপি, বরিশাল তৃতীয় হয়েছে।‘ঘ’ গ্রুপে র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার প্রথম, র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-১, ঢাকা তৃতীয় হয়েছে।‘ঙ’ গ্রুপে ডিবি, ডিএমপি, ঢাকা প্রথম, ডিএমপির ওয়ারী বিভাগ দ্বিতীয় এবং মিরপুর বিভাগ, ডিএমপি, ঢাকা তৃতীয় হয়েছে।‘চ’ গ্রুপে হাইওয়ে পুলিশ প্রথম, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন দ্বিতীয় এবং রেলওয়ে পুলিশ তৃতীয় হয়েছে।

২০১৯ সালে চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে ‘ক’ গ্রুপে সিএমপি, চট্টগ্রাম প্রথম, চট্টগ্রাম জেলা দ্বিতীয় এবং দিনাজপুর জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘খ’ গ্রুপে যশোর জেলা প্রথম, নারায়ণগঞ্জ জেলা দ্বিতীয় এবং ফেনী জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘গ’ গ্রুপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রথম, রাজবাড়ী জেলা দ্বিতীয় এবং জয়পুরহাট জেলা তৃতীয় হয়েছে।‘ঘ’ গ্রুপে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম প্রথম, র‌্যাব-১৩, রংপুর দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-১০, ঢাকা তৃতীয় হয়েছে।‘ঙ’ গ্রুপে ডিএমপি, ঢাকার মিরপুর বিভাগ প্রথম, ডিএমপি, ঢাকার মতিঝিল বিভাগ দ্বিতীয় এবং ডিএমপি, ঢাকার উত্তরা বিভাগ তৃতীয় হয়েছে।‘চ’ গ্রুপে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন প্রথম, রেলওয়ে পুলিশ দ্বিতীয় এবং হাইওয়ে পুলিশ তৃতীয় হয়েছে।

পুলিশ সপ্তাহ ২০২০ উপলক্ষে প্যারেডে অংশগ্রহণকারী দলসমূহের মধ্যে কুচকাওয়াজে প্রথম স্থান অর্জন করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন দল, দ্বিতীয় হয়েছে শিল্পাঞ্চল পুলিশ দল এবং তৃতীয় হয়েছে যৌথ মেট্রো দল।শিল্ড প্যারেড প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান দখল করেছে যৌথ মেট্রো দল, দ্বিতীয় হয়েছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন দল এবং তৃতীয় হয়েছে শিল্পাঞ্চল পুলিশ দল।আইজিপি বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ইউনিটের মধ্যে পুরস্কার ও ট্রফি বিতরণ করেন।

IPCS News /রির্পোট।