রবিবার ৫ই জুলাই, ২০২০ ইং ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

অস্ট্রেলিয়ায় নামাজের পরেই মহান আল্লাহর রহমতে বৃষ্টি শুরু হয়

আপডেটঃ ২:৪৭ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৭, ২০২০

নিউজ ডেস্কঃ

নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যে ৩৬ লাখ হেক্টর জমি পুড়ে গেছে যা ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামের থেকেও বড়।কুইন্সল্যান্ডে ২ লাখ ৫০ হাজার হেক্টর জমি পুড়ে গেছে।এছাড়া ভিক্টোরিয়া অঙ্গরাজ্যে ৮ লাখ ২০ হাজার হেক্টর বনাঞ্চল পুড়ে গেছে।এই ভয়াবহ দাবানল মোকাবেলায় সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার।তবুও থামছে না আগুনের ভয়াবহতা।ইস্ট গিপসল্যান্ড আর ভিক্টোরিয়াতেই ৪৩টি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে আর ১৭৬টি শেষ হয়ে গেছে নিউ সাউথ ওয়েলস।দাবানল বন্ধের জন্য প্রয়োজন বৃষ্টি।তাই অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন শহরে সালাতুল ইশরাক এর নামাজ আদায় করেছিল দেশটির মুসলিম কমিউনিটি।এরপরই অস্ট্রেলিয়ায় নামে স্বস্তির বৃষ্টি।অস্ট্রেলিয়ার উপকূলে বৃষ্টি হওয়ায় দাবানলে পোড়া এলাকার তাপমাত্রা কিছুটা কমেছে।রোববার ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে কমে তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রিতে এসেছে।তবে এই বৃষ্টি বিশাল দাবানল নেভানোর জন্য যথেষ্ট নয়।দাবানল থাকতে পারে আরো কয়েক মাস।নিউসাউথ ওয়েলসের রাজ্যপ্রধান গ্ল্যাডিস বেরেজিক্লিয়ান সোমবার সকালে বলেন, বৃষ্টি কিছুটা স্বস্তি দিলেও আত্মতুষ্টিতে ভোগার উপায় নেই।গোটা রাজ্যে এখনো ১৩০টি দাবানল চলছে।এই ঘটনার ভেতর আরো দুইজন নিখোঁজ হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।তাদের উদ্ধারে অভিযান চলছে।দমকল বিভাগের কর্মীরা বলছেন, বৃষ্টির পর তাদের জন্য নতুন কিছু চ্যালেঞ্জ থাকছে।আবার যেন দাবানল মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে, সেই চেষ্টা করছেন তারা।এর আগে, সেপ্টেম্বরে ছড়িয়ে পড়া দাবানলে এখন পর্যন্ত ২৪ জন মারা গেছেন।এর মধ্যে চলতি সপ্তাহে নিউ সাউথ ওয়েলসেই সাতজন মারা গেছেন। বাকিরা এখনো নিখোঁজ।নিউ সাউথ ওয়েলসের পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে ভিক্টোরিয়া অঙ্গরাজ্যে।রাজ্য দুটিতে ৫০০ কিলোমিটারেরও বেশি এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে ভয়াবহ দাবানল।মারা গেছে অসংখ্য প্রাণী।ঘরছাড়া হয়েছেন হাজার হাজার মানুষ।


IPCS News /রির্পোট।