শনিবার ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

চাকুরী স্থায়ী করন করা নাহলে সারাদেশে ট্রেন চলাচল বন্ধের ঘোষনা অস্থায়ী কর্মচারীদের

আপডেটঃ ৭:০৪ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৮, ২০২২

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী:- বেতন বৃদ্ধির দাবীতে নাটোরে রেলের ৩য় শ্রেনীর অস্থায়ী (টিএলআর) কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন শুরু করেছে।একই দাবিতে তাদের সাথে যোগ দিয়েছেন রেলের উন্নয়ন প্রকল্পের গেটম্যানরা।রোববার সকাল থেকে নাটোর স্টেশনে কর্মরত রেলের ৩য় শ্রেনীর অস্থায়ী (টিএলআর) কর্মচারীরা তাদের অস্থায়ী পদ থেকে স্থায়ীকরন এবং নিয়োগবিধি ২০২০ সংশোধন করে পুর্বের ন্যায় ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের ৮ম শ্রেণী পাশ রাখা সহ ৬ দফা দাবিতে এই কর্মবিরতি শুরু করেছে।অন্যদিকে রেলের উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নিয়োগ কৃত গেটম্যানদের স্থায়ী চাকুরীর সকল বিধি নিয়ম মেনেই নিয়োগ দেয়া হলেও তাদের চাকুরী স্থায়ী করন করছেনা রেল কতৃপক্ষ তারা বলছেন ডিসেম্বরের মধ্যে টিএলআর ও তাদের চাকুরী স্থায়ীকরন করা না হলে সারাদেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হবে।

টিএলআর ও প্রজেক্টের গেটম্যানরা জানান,রেলের আইনানুযায়ী ৩ বছর কেউ চাকুরী করলে তার চাকুরী স্থায়ী বা রাজস্ব খাতে চলে যায়।কিন্তু তাদের কারো ৫ বছর , কারো ৩ বছরের অধিক সময় ধরে চাকুরী করে আসলেও তাদেরকে স্থায়ী করন করছেনা রেল কতৃপক্ষ।বাধ্যহয়ে তাদের আন্দোলন করতে হচ্ছে।

তারা আরো জানান,তারা জানতে পেরেছেন, তাদের চাকুরী স্থায়ী করন না করে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে লোকবল নিয়োগের পাঁয়তারা করছে রেলের একটি স্বার্থান্বেসি মহল।তাদের এ চক্রান্ত সফল হতে দেবেনা তারা।প্রয়োজনে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিয়ে সারাদেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হবে।

তারা আরো বলেন, আমর সেটা চায়না।কতৃপক্ষের শুভবুদ্ধির উদয় হোক।সকালে কর্মবিরতি শুরু করার পর রাজশাহী থেকে চিলাহাটিগামী তিতুমির এক্সপ্রেস ট্রেন নাটোর স্টেশনে আটকা পড়ে।পরে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে প্রায় দেড় ঘন্টা পর ট্রেনটি গন্তব্যের উদ্দেশ্যে নাটোর স্টেশন ছেড়ে যায়।

এসময় ট্রেনের যাত্রিদের অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।এব্যাপারে নাটোর স্টেশনের সহকারী স্টেশন মাষ্টার কামরুন নাহার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,অস্থায়ী (টিএলআর) কর্মচারীরা রোববার সকাল ৬টা থেকে ধর্মঘট শুরু করায় ট্রেনের সিগনাল দেয়া সম্ভব হয়নি।এসময় তিতুমির ট্রেনটি আউটার সিগনালে পড়ে ছিল।

পরে সিগনাল ছাড়াই (ওপিটি) ট্রেনটি নাটোর স্টেশন প্লাটফরমে ৯ টা ১৮ মিনিটে প্রবেশ করানো হয় এবং চার মিনিট বিরতি দিয়ে ৯টা ২২ মিনিটে ট্রেনটি গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।ট্রেনটি নাটোর স্টেশনে প্রবেশের নির্ধারিত সময় ছিল সকাল ৭ টা ৪৭ মিনিটের সময়।

ধর্মঘটি শ্রমিকদের কর্মসুচী পালনের কারনে চিলাহাটিগামী তিতুমির এক্সপ্রেস ট্রেনটি নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই ঘন্টা আউটার সিগনালে আটকা ছিল।বর্তমানে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।তবে একজন স্থায়ী কর্মচারী দিয়ে কাজ করতে হচ্ছে।ফলে নাটোর স্টেশনে ক্রসিং হবেনা।

IPCS News : Dhaka : আবুল কালাম আজাদ : রাজশাহী।