শনিবার ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

দিনাজপুর সদর ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল শিশু আনজুম

আপডেটঃ ৩:৩৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

নিউজ ডেস্কঃ

দিনাজপুর:- দিনাজপুর সদর নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেয়েছে আনজুম (১৬) নামে এক শিশু শিক্ষার্থী।সে দিনাজপুর পৌর শহরের এক নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ লালবাগ বৈশাখীর মোড়ের বাসিন্দা মোঃ বাদশা’র মেয়ে ও দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর-২০২২) দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুর্তুজা আল মুঈদ আনজুম’র গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বিয়ের কার্যক্রম বন্ধ করে দেন।কনের গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পুলিশের উপস্থিতি দেখে আনজুমের বিয়ের অনুষ্ঠানে আসা আত্মীয়-স্বজন অনুষ্ঠানস্থল থেকে সরে যায়।পরে কনে আনজুমের পিতা বাদশা ও তার মাতা মোছাঃ তাদের মেয়েকে বাল্যবিবাহ দিবে না মর্মে নির্বাহী অফিসারের নিকট মুচলেকা দিয়ে অঙ্গীকার করেন।

তার পিতা-মাতা আরো অঙ্গিকার করেন, যে মেয়ের বিবাহযোগ্য বয়স বা ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না।এটাও প্রতিজ্ঞা করে যে এর মধ্যে যদি তার মেয়ে আনজুমকে বিয়ে দেয় তাহলে বাংলাদেশের ফৌজদারি আইনে যে কোন শাস্তি মেনে নিবেন তারা।

উল্লেখ্য, শিশু আনজুমের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে  দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কোতোয়ালি থানা পুলিশের একটি দল ও কয়েকজন মিডিয়াকর্মী নিয়ে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হওয়ায় কনে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

পরে তাকে খুঁজে বের করে তার পিতা ও মাতাসহ ইউএনও’র সামনে উপস্থিত করা হয়।এসময় তার পিতা-মাতা নিজেদের ভুল স্বীকার করে ক্ষমাপ্রার্থনা করলে মানবিক কারণে ইউএনও তাদেরকে ক্ষমা করে দেন ও অঙ্গিকার নামায় স্থানীয় কাউন্সিলর ও আনজুমের পিতা-মাতার স্বাক্ষর নিয়ে তাদেরকে তাদেরকে ছেড়ে দেন।

বর আহাদ হাসান রুবেল দিনাজপুর পৌর শহরের উত্তর চাউলিয়াপট্টি এলাকার বাসিন্দা আব্দুস সালামের বিদেশ ফেরত ছেলে।বর তার পিতা-মাতাসহ শুক্রবার সকালে নিজ কার্যালয়ে গিয়ে মুচলেকা দিয়ে আসার জন্য স্থানীয় কাউন্সিলরকে পরামর্শ দেন ইউএনও মুর্তুজা আল মুুঈদ।

IPCS News : Dhaka : মাহবুবুল হক খান : দিনাজপুর।