রবিবার ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

মদনে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বিক্রির অভিযোগ উঠেছে।

আপডেটঃ ৭:৩১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১১, ২০২২

নিউজ ডেস্কঃ

নেত্রকোনা:- নেত্রকোনা মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের ফতেপুর আশ্রয়ন প্রকল্পের – ২ এ ঘটনা ঘটে।উপকার ভোগী রতন মিয়ার (৫০) ঘর নং ৮, ছদ্দু মিয়ার স্ত্রী রেজিয়া আক্তার ঘর নং ২৩, মুসা মিয়া ঘর নং ৩১, পলাশ মিয়া ঘর নং ৪১, নামের বরাদ্দকৃত ঘরের দলিল টাকার বিনিময়ে হস্তান্তর করা হয়।বর্তমানে ঘরে বসবাস কারি মজিদা আক্তার স্বামী আনিস মিয়া, আলপিনা আক্তার, স্বামী ইব্রাহিম, তহুরা আক্তার, স্বামী আলাল, পুতুলা আক্তার, স্বামী মৃত আব্দুল খালেক, এদের কাছ থেকে পূর্বের ঘর মালিকরা ঘর বাবদ ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা প্রতিজনের নিকট হতে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়াছে।গুচ্ছ গ্রাম ২য় পর্যায় (সিভিআরপি) ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে ৪৬টি পরিবারের মাঝে ঘর ও জমি মালিকানা বুঝিয়ে দেওয়া হয়।সরেজমিনে ফতেপুর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে গিয়ে পূর্বের উপকার ভোগী ঘর মালিক কাওকে পাওয়া যায়নি।

তবে টাকার বিনিময়ে ক্রয় করা মজিদা বেগম জানান, পূর্বের ৮ নং ঘর মালিক রতনের (৫৫) নিকট হতে ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে আমি ঘর কিনে বসবাস করছি, অন্য ঘরে বসবাস কারি আলপিনা আক্তার (২৫) জানান, আমি ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে পূর্বের ২৩ নং ঘর মালিক রেজিয়া আক্তার নিকট হতে ঘর কিনে বসবাস করছি, আমাকে ঘরের দলিল ও স্ট্যাম্প স্বাক্ষর করে দিয়েছে।

৪১ নং ঘরের বসবাস কারি উতলা আক্তার (৫৫) স্বামী মৃত আব্দুল খালেক তিনি জানান, পূর্বের ঘরের মালিক স্বজল মিয়ার নিকট থেকে কিনে নেয় মুসা মিয়া, মুসা মিয়ার নিকট হতে আমি ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে কিনে বসবাস করছি।৩১ নং ঘরের বসবাস কারি তহুরা আক্তার (৪০) স্বামী আলাল তিনি জানান, ঘরের পূর্বের মালিক পলাশের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঘর কিনে বসবাস করছি।

গুচ্ছ গ্রাম সভাপতি মুর্তজা আলী (৬০) এ প্রতিনিধিকে বলেন,আমি শুনতে পারলাম পূর্বের মালিকরা নাকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেওয়া উপহারের ঘর অন্যত্র বিক্রি করে দিয়েছে।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম লুৎফর রহমান এ প্রতিনিধিকে জানান, আশ্রয়ণ-প্রকল্প-২ এর ঘর বরাদ্দ নিয়ে না থাকা ও ক্রয় বিক্রয় এবং ভাড়া দেওয়ার কোন সুযোগ নেই।

ঘটনাটি তদন্ত করা হবে।প্রমাণিত হলে উপকার ভোগী বরাদ্দ বাতিল করে অন্য ভূমিহীন ও গৃহহীনকে ঘর গুলি বরাদ্দ দেওয়া হবে। 

IPCS News : Dhaka : শহীদুল ইসলাম : নেত্রকোনা।