বুধবার ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

মাঝরাতে রাবি মহিলা হল থেকে বের করে দিল ছাত্রীকে

আপডেটঃ ১২:৩০ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৬, ২০২২

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী প্রতিনিধি :- মাঝরাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) তাপসী রাবেয়া হলের এক শিক্ষার্থীকে মারধরের পর হল থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে হলের কয়েকজন ছাত্রীর বিরুদ্ধে।বৃহস্পতিবার রাতে ওই ছাত্রীকে মারধর করে ভোর চারটার দিকে বের করে দেয়া হয় বলে জানা গেছে।এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী হল প্রশাসন ও ছাত্র উপদেষ্টার কাছে অভিযোগও দিয়েছেন।ভুক্তভোগী ঐ ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।সম্প্রতি তিনি তাপসী রাবেয়া হলে উঠেছেন।এ ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন, সমাজকর্ম বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মেফতাহুল জান্নাত মনিকা, উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস সূচনা, নাট্যকলার আসমা বিনতি, চারুকলার স্মৃতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মনিশা ও প্রাণীবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শাম্মী আক্তার প্রেমা।

হল সূত্রে জানা যায়, প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার তাপসী রাবেয়া হলের ‘খ’ ব্লকের চার তলায় নিয়মিত সভা করেন ‘স্বঘোষিত হলনেত্রীরা’।এ সভায় প্রতিটি রুমের সদস্যদের সমস্যা ও ব্লকে থাকার নিয়মাবলি নিয়ে আলোচনা হয়।বৃহস্পতিবারের সভায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী অসুস্থ থাকায় রুমে চলে যান।পরে সেখানে তার রুমমেট তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করে।

এক পর্যায়ে কয়েকজন তাকে মারধর করে হল থেকে বের করে দেয় বলে ভুক্তভোগী অভিযোগ করেন।ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থ থাকায় রাত দেড়টার দিকে রুমমেট সূচনাকে লাইট অফ করতে বললে সে লাইট অফ করতে অস্বীকৃতি জানায়।কথাবার্তার একপর্যায়ে সূচনা রেগে গিয়ে ফ্লোরের সবাইকে নিয়ে আসেন।

পরে কয়েকজন মিলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।একপর্যায়ে রাত ৪টার দিকে অভিযুক্ত মনিকা ভুক্তভোগীকে মেরে হল থেকে বের করে দেয়। পরে ভুক্তভোগীকে হল সুপার আয়াদের রুমে রেখে আসেন।এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভুক্তভোগীর রুমমেট জান্নাতুল ফেরদৌস সূচনা বলেন, এটা নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

অভিযুক্ত মেফতাহুল জান্নাত মনিকার মোবাইল নম্বরে কল করা হলে তাকে যখন তখন ফোন না দিতে বলে কল কেটে দেন।তাপসী রাবেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ফেরদৌসী মহল বলেন, আমি বর্তমানে রাজশাহীর বাইরে আছি।তবে হলের ঘটনার বিষয়ে শুনেছি।রোববার বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ছাত্র উপদেষ্টা ড. তারেক নূর বলেন, ভুক্তভোগী আমার সঙ্গে দেখা করে অভিযোগ জানিয়েছে।আজ ছুটির দিন হওয়ায় আগামীকাল তাকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি।বিষয়টি হল প্রশাসন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কঠোরভাবে নিয়েছে।শিক্ষার্থী নির্যাতন কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না।অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটি।’

IPCS News : Dhaka : আবুল কালাম আজাদ : রাজশাহী।