রবিবার ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ শিরোনামঃ

রাজশাহী মহানগরীতে নিয়োগ পরীক্ষায় ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার; দুই পরীক্ষার্থী গ্রেফতার

আপডেটঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৫, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

আরএমপি নিউজঃ রাজশাহী মহানগরীতে খাদ্য অধিদপ্তরের ‘‘সহকারী খাদ্য পরিদর্শক’’ পদের নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির উদ্দেশ্যে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করার অভিযোগে দুই পরীক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেছে আরএমপি’র রাজপাড়া থানা পুলিশ।এসময় তাদের কাছ থেকে দুইট ক্ষুদ্র ইলেক্ট্রিক ডিভাইস ও তিনটি এন্ড্রয়েড মোবাইল ও প্রশ্ন পত্র এবং সমাধান সম্বলিত প্রশ্নপত্র উদ্ধার হয়।গ্রেফতারকৃতরা হলো রাজশাহী জেলার দূর্গাপুর থানার পুরাতন তাহেরপুর গ্রামের মোঃ জেহের আলী কবিরাজের ছেলে মাহফুজ আহম্মেদ (২৮) ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার মোঃ ইসমাইল হোসেনের ছেলে মোঃ ইব্রাহিম (২৯)।ঘটনা সূত্রে জানা যায়, গতকাল ৩ ডিসেম্বর ২০২১ শক্রবার সকাল ১০ টা হতে সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত নগরীর রাজপাড়া থানার নিউ গভঃ ডিগ্রী কলেজে খাদ্য অধিদপ্তরের ‘‘সহকারী খাদ্য পরিদর্শক’’ পদের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষার্থী মাহফুজ ও ইব্রাহিমের আচরণ সন্দেহজনক হলে কক্ষ পরিদর্শক তাদের অধ্যক্ষের অফিসে নিয়ে যায়।সেখানে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ইলেক্ট্রিক ডিভাইস ব্যবহারের বিষয়টি স্বীকার করে।পরীক্ষা কেন্দ্রের নিরাপত্তা ডিউটিতে নিয়োজিত সেখানে উপস্থিত রাজপাড়া থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম আসামীদের দেহ তল্লাশী করে পরীক্ষায় জালিয়াতির কাজে ব্যবহৃত একটি ক্ষুদ্র ইলেক্ট্রিক ডিভাইস,তিনটি এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন।

উদ্ধারকৃত মোবাইল ফোন পর্যালোচনায় ম্যাসেঞ্জারে উত্তর সম্বলিত প্রশ্ন পেয়ে তার প্রিন্ট কপি জব্দ করেন এবং আসামী মাহফুজের ডান কানের ভিতরে আরো একটি ক্ষুদ্র ইলেক্ট্রিক ডিভাইস দেখতে পান।কিন্তু সেই ডিভাইসটি তাৎক্ষনিক বের করা সম্ভব না হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ডাক্তারের সহায়তায় কানের ভিতর হতে একটি ইয়ার বাড উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামীরা পরীক্ষায় জালিয়াতির উদ্দেশ্যে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহারের কথা স্বীকার করে।ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্য আসামীদের নাম ঠিকানা সনাক্ত করে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

IPCS News : Dhaka : আর এম পি নিউজ : রাজশাহী।