শুক্রবার ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তৃতীয় দিনের পরিবহন ধর্মঘটে জেলায় জেলায় দুর্ভোগ যাত্রীদেরঃ

আপডেটঃ ৩:৩৭ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৭, ২০২১

নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী প্রতিনিধি:-জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহণ মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘটের তৃতীয় দিনে মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।বাস চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীদের চাপ বেড়েছে করলেন ও  অন্যান্ন যানবাহনে।এছাড়া ধর্মঘটে পণ্য পরিবহণ ব্যাহত হওয়ায় প্রভাব পড়েছে কাঁচাবাজারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যেরও।এদিকে, রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সকল জেলা ও বিভাগীয় শহরে কোনো বাস চলাচল করছে না।বন্ধ রয়েছে আন্তঃজেলা বাস চলাচলও।এতে চিকিৎসা কিংবা জরুরি কাজে বের হওয়া যাত্রীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে।হেঁটে কিংবা বেশি ভাড়া দিয়ে বিকল্প যানবাহনে গন্তব্যে ছুটছেন তাঁরা।রাজশাহীতে পথে পথে কিংবা বিভিন্ন বাস কাউন্টারে দেখা গেছে যাত্রীদের দুর্ভোগ।ট্রেনে অতিরিক্ত বগি সংযোজন করেও সামলানো যাচ্ছে না যাত্রীদের চাপ।বগির ভেতর ঠাসাঠাসি ও ছাদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন।করোনার কারণে দাঁড়ানোর টিকেট বিক্রি বন্ধ থাকায় ট্রেনের টিটিদের কাছে জরিমানা দিয়ে টিকেট কেটে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে যাত্রীদের।

শিশু সন্তানদের কোলে নিয়ে ট্রেনে দাঁড়িয়ে অনেক মায়েরা রওয়ানা দিচ্ছেন গন্তব্যে।রাজশাহী রেল স্টেশনের মত একই চিত্র  বগুড়া, সান্তাহার ,ঈশ্বরদী ও নাটোরসহ পশ্চিমাঞ্চলের সকল রেলস্টেশনে।চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দরে ভারতীয় পণ্যবাহী দুই শতাধিক ট্রাক আটকে পড়ায় রাজশাহীর বাজারে বেড়েছে পেঁয়াজ, শীতকালীন সব্জিসহ নিত্যপ্রয়োজনিয় দ্রব্যের দাম।রাজশাহী বাসশ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব উদ্দিন বলেন,শুধু ডিজেল নয়, ফেরি ভাড়া, ব্রিজের টোল-ট্যাক্স বৃদ্ধি করে পরিবহণ সেক্টরের বেহাল অবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছে।একটা সুষ্ঠু সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তারা পরিবহন ধর্মঘট অব্যাহত রাখবেন।তৃতীয়দিনের মতো পরিবহণ ধর্মঘটে চরম ভোগান্তির শিকার সাধারণ মানুষ।একই অবস্থা রাজশাহী বিভাগের সকল জেলায় বিরাজমান।

IPCS News : Dhaka : আবুল কালাম আজাদ : রাজশাহী।